1. sjahedpoet@gmail.com : Jahed Sarwar : Jahed Sarwar
  2. info@dhakarkhobor.com : ঢাকার খবর :
  • বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ১১:৪৬ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
ঢাকার বনশ্রীর জুতা কারখানার গুদামে আগুন। ভারত, বাংলাদেশে বন্যায় লক্ষ লক্ষ গৃহহীন, ১৮ জন মারা গেছে। বগুড়ার শিবগঞ্জে অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার সময় দুর্বৃত্তরা আব্দুল হান্নান (৩৩) নামে পল্লী বিদ্যুতের এক কর্মীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। বিদ্যুতায়িত হয়ে একসাথে তিন ভাইয়ের বৌয়ের মর্মান্তিক মৃত্য। অপসাংবাদিকতা রোধে কাজ করছে প্রেস কাউন্সিল করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে আ জ ম নাছির চেয়ারম্যান মেম্বারদের চাল চুরির দিন শেষ চট্টগ্রামে নিখোঁজ সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার উদ্ধার হাজি সেলিমের দখলে থাকা জমি উদ্ধারে অভিযান, ভাঙা হলো স্থাপনা পার্বত্য বাঙালি ছাত্রপরিষদের ২৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত
https://fightingleatherconspicuous.com/k0cutn3z?key=0c635b62046fd3d5a4d6579432a2e7ed

ঢাকা এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পরেও আইপি সুবিধার ধারাবাহিকতা চায়।

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৪ জুন, ২০২২
  • ২৩ বার পড়া হয়েছে

নাহিদ মাহমুদ:১৪জুন২০২২ই:ঢাকারখবর:

ঢাকা এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পরেও আইপি সুবিধার ধারাবাহিকতা চায়

স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে স্নাতক হওয়ার পরেও বাংলাদেশ বিদ্যমান মেধা সম্পত্তি সুবিধা অব্যাহত রাখার চেষ্টা করেছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারীর প্রভাব বিবেচনা করে বাংলাদেশ অন্তত ২০২৯ সাল পর্যন্ত আইপি সুবিধা চালু রাখার জোর দাবি জানিয়েছে। রবিবার সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় আন্তঃসরকারি সংস্থা।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশসহ আরও অনেক দেশ যারা স্বল্পোন্নত দেশ থেকে স্নাতক হবে তারা যৌথভাবে এলডিসি থেকে স্নাতক হওয়ার পরও আইপি সুবিধা অব্যাহত রাখার দাবি জানিয়েছে।

২০২৬ সালের পরেও আমরা আইপি সুবিধা পেতে চাই। আমি এখানে এটি দাবি করেছি। কোভিডের কারণে আমাদের জীবন থেকে দুই বছর কেটে গেছে। এর প্রভাব আরও ৫ বছর চলবে। সুতরাং, এই পরিস্থিতি বিবেচনা করে, আমরা প্রদত্ত আইপি সুবিধা ২০২৯ সাল পর্যন্ত চালিয়ে যাওয়ার দাবি জানাচ্ছি,’ তিনি বলেছিলেন।

টিপু উল্লেখ করেন যে বাংলাদেশের জন্য মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি এবং অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তির প্রস্তুতি নিতেও এই সুবিধা অপরিহার্য।

বাংলাদেশ মূলত ফার্মাসিউটিক্যাল খাতে আইপি সুবিধা পাচ্ছে। এই সেক্টরে, ২০৩৩ সাল পর্যন্ত স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য এই সুবিধা অব্যাহত থাকবে। বাংলাদেশ ২০২৬ সালে এলডিসি থেকে স্নাতক হলে দেশটি এই সুবিধা হারাবে।

তবে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ খাদ্যপণ্যের ওপর রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা আরোপ না করার আহ্বান জানিয়েছে।

‘বাংলাদেশ মনে করে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বিশ্বব্যাপী খাদ্য সংকট সৃষ্টি করেছে। হঠাৎ করে খাদ্য রপ্তানি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেকেই ভোগান্তিতে পড়েছেন। মানুষের বেঁচে থাকার জন্য বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। তাই বাংলাদেশ খাদ্যপণ্য রপ্তানি বন্ধ না করার দাবি জানিয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: আলাইসা আইটি

//lephaush.net/4/5163621