একই পরিবারের সাতজন অচেতন হয়ে হাসপাতালে

টাঙ্গাইলের সখীপুরে এক পরিবারের সাতজনকে নেশাজাতীয় খাবার খাইয়ে অচেতন করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সন্ধ্যায় সখীপুর পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের গড়গোবিন্দপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। প্রতিবেশীরা ওই পরিবারের সবাইকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে রাতেই হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

এরা হলেন- আবদুর রহিম তালুকদার (৭০), তার স্ত্রী জায়দা বেগম (৫০), তার ছেলে কলেজছাত্র ইমরান (২৫), তার দুই মেয়ে স্কুলছাত্রী তাহমিনা (১৬) ও তাহেরা (১২) এবং তার ভাই লোকমান তালুকদারের স্ত্রী বেগম (৫০) ও ভাতিজা কলেজছাত্র বুলবুল আহমেদ (২৬)।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুরের দিকে ওই বাড়িতে অপরিচিত এক যুবক তার কানে পোকা বা পিঁপড়ে ঢুকেছে বলে তা বের করতে তেল চান। এক পর্যায়ে ওই যুবক তেল নিতে রান্না ঘরে ঢুকে পড়েন। পরে তাকে তেল দেয়া হলে তিনি চলে যান। এ সময় রান্না ঘরে কেউ ছিল না। বাড়ির সবাই সন্ধ্যা থেকেই একে একে অচেতন হয়ে পড়েন। প্রতিবেশীরা এ খবর জানার পর রাত আটটার দিকে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করান।

ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জাহিদ হাসান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে একটি দুষ্কৃতিকারী চক্রের সদস্যরা নেশাজাতীয় কিছু খাইয়ে সবাইকে অচেতন করে বাড়ির মালামাল লুট করে নেয়ার পরিকল্পনা করেছিল। তেল নেয়ার ছুতো দেখিয়ে রান্না ঘরে ঢুকে সে খাবারের মধ্যে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে দিয়ে গেছে। সেই খাবার খেয়ে সাবই অচেতন হয়ে পড়েছে।

এ ব্যাপারে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রাজিয়া সুলতানা বলেন, রোগীদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তারা সবাই শঙ্কামুক্ত রয়েছেন।

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ওসি এসএম তুহীন আলী বলেন, ঘটনা শুনে ও খোঁজ-খবর নিতে গৃহকর্তার বাড়ি ও হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। দুষ্কৃতিকারী চক্রের সদস্যরা এ ধরনের ঘটনা ঘটাতে পারে বলে ধারণা করছেন।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.