আগামী ২ সেপ্টেম্বর পবিত্র ঈদুল আযহা। প্রিয়জনের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে মানুষ ছুটেন বাড়ির পথে। কিন্তু ঈদের আনন্দ নিরানন্দে পরিণত হয় যাত্রা পথের অসহনীয় যানজটের কারণে। 



ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মহাসড়ক। এই সড়কে রাজধানী ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গ এবং বৃহত্তর ময়মনসিংহের প্রায় ২৩টি জেলার যানবাহন চলাচল করে। যেকোনো উৎসব ছাড়াও প্রতিনিয়তই যানজট লেগেই থাকে এই মহাসড়কে।

আর মাত্র কয়েকদিন পর ঈদুল আযহা হলেও এখনো ঢাকা টাঙ্গাইল বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের খানাখন্দের কাজ শেষ করতে পারেনি সড়ক ও জনপথ কর্তৃপক্ষ। এতে গাজীপুরের চন্দ্রা থেকে টাঙ্গাইলের কালিহাতীর বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব প্রান্ত পর্যন্ত ভয়াবহ যানজটের আশঙ্কা করছেন সাধারণ যাত্রীরা।



সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গত ৯ আগস্ট ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে চারলেনের কাজ পরিদর্শনকালে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ঈদের আগে ও পড়ে মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে ঘরে ফিরতে পারে তাই আগামী ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যে সড়ক সংস্কার কাজ শেষ করতে নির্দেশ দেন। কিন্তু ২৪ আগস্টেও কাজ শেষ হয়নি।
বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইলের রাবনা বাইপাস, রসুলপুর, কালিহাতীর এলেঙ্গা, পৌলী এলাকায় সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানের খানাখন্দে জোড়াতালি দেওয়ার কাজ চলছে। বিভিন্ন স্থানে রাস্তা খুঁড়ে ও গাড়ি আটকিয়ে কাজ করায় যান চলাচলে বিঘ্ন হচ্ছে। সেইসাথে ২০ কিলোমিটার এলাকায় চলছে ঘন ঘন যানজট এবং যানবাহনের ধীরগতি। বৃহস্পতিবারও রাস্তার কাজ চলায় প্রায় সারাদিনই যানজট ছিল।
এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘মহাসড়কের অবস্থা ভাল না হলে ভয়াবহ যানজটের কবলে পড়তে হবে ঈদে ঘরে ফেরা যাত্রীদের। মহাসড়ক দিয়ে প্রতিদিন ২৪ হাজার যানবাহন চলাচল করে। ঈদের দুই একদিন আগে ও পরে মহাসড়কে প্রায় ৭৫ হাজার গাড়ি চলাচল করে। এ অতিরিক্ত যানবাহনের চাপেও মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘ঈদের আগে যানজট নিরসনে মহাসড়কে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন থাকবে। এছাড়া পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থাও থাকবে।’
রংপুরগামী শ্যামলী পরিবহনের চালক আব্দুল বারেক বলেন, ‘চন্দ্রা থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত যে ভাঙ্গা-চোরায় রাস্তা গাড়ি চালানোই কষ্ট।’
টাঙ্গাইল থেকে ঢাকাগামী ধলেশ্বরী পরিবহনের রোকেয়া সুলতানা নামের এক যাত্রী জানান, এখনই ৩ ঘণ্টার রাস্তা ৬-৭ ঘণ্টা লাগে, ঈদের সময় যে কি হবে?
টাঙ্গাইল সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী কেএম নূর-ই-আলম বলেন, ‘ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে দ্রুততার সাথে মহাসড়কের সংস্কার কাজ এগিয়ে চলছে। আশাকরি দ্রুতই সংস্কার কাজ শেষ হবে।’

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.