মাদারীপুর সদরে বিএনপির যৌথ কর্মিসভা, কালকিনি ও রাজৈরের পথসভায় পুলিশ লাঠিচার্জে পণ্ড হয়ে গেছে। শনিবার এই ঘটনায় বিএনপির প্রায় ২৫ জন কর্মী আহত হয়েছেন। এ ছাড়াও ২০ জন কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৪ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে।


দলীয়, স্থানীয়, প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জেলা, উপজেলা ও পৌরসভার বিএনপি'র সকল অঙ্গসংগঠন নিয়ে এক যৌথ কর্মিসভার আয়োজন করে জেলা বিএনপি। সেই অনুযায়ী মঙ্গলবার পুলিশের কাছে জেলা বিএনপি'র পক্ষ থেকে অনুমতি চাওয়া হলে তা প্রত্যাহার হয়।

পরে শনিবার দুপুরে কর্মিসভার জন্য দলীয় লোকজন সদর উপজেলার চরমুগয়িরা এলাকায় জড়ো হলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তা পণ্ড করে দেয়।  এ সময় তাদের দলের প্রায় ১৫ কর্মী আহত হয়েছেন। তাদেরকে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ সময় ১৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
এদিকে কালকিনিতে শতাধিক মোটরসাইকেল মহড়া নিয়ে এ বি এম মাহাবুব সরদারের নেতৃত্বে উপজেলা থেকে মাদারীপুর বিএনপির কর্মিসভায় যাওয়ার পথে কালকিনি থানার সামনে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এতে মো. মমিন বেপারী, হাসান শরিফ, আহম্মেদ খা, সুজন ভুইয়া, সুজন শিকদার ও হৃদয় শিকদারসসহ ১০ জন আহত হন।

অপরদিকে রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট উত্তর পাড়ে শনিবার বিএনপির পথসভা পুলিশের বাধার মুখে পণ্ড হয়ে যায়।
রাজৈর উপজেলা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সামচুল হক হাওলাদারের ছেলে আরিফ হাওলাদারের নেতৃত্বে টেকেরহাট বন্দরে নেতাকর্মীদের সংবর্ধনা ও পথসভার আয়োজন করে স্থানীয় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

পুলিশের বাধার মুখে তারা টেকেরহাট উত্তরপাড় পপুলার হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে পথসভা শুরু করে। কিছুক্ষণ পর পুলিশ ধাওয়া দিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মানিক আকন, জামাল খোন্দকার, রাসেল শেখ ও আলামীন শেখ নামে চারজনকে আটক করে নিয়ে যায়।
জেলা বিএনপির সংগঠনিক সম্পাদক জামিনুর হোসেন মিঠু বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে যৌথ সভার আয়োজন করেছিলাম। কিন্তু পুলিশ তাতে বাধা দেয়। আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ করে।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান জানান, আমাদের নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করছিল। হঠাৎ পুলিশ এসে তাদের ধাওয়া দিয়ে আমাদের পথসভা পণ্ড করে দেয়। একটা গণতান্ত্রিক দেশে এগুলো মেনে নেওয়া যায় না।


রাজৈর থানা ওসি কামরুল হাসান জানান, বিএনপির লোকজন রাস্তা বন্ধ করে পথসভা শুরু করে। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের সরিয়ে দিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করে যান চলাচলের উপযোগী করে।
মাদারীপুর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সরোয়ার হোসেন বলেন, এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে তাদের সভা করতে দেওয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, মাদারীপুরে যৌথ সভায় ঢাকা থেকে বিএনপির নির্বাহী কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন, নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ ইসলাম, নির্বাহী কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার মাশুকুর রহমান, সেলিমুজ্জামান সেলিম ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খাঁন মাদারীপুরে বিএনপির যৌথ কর্মিসভায় যোগ দিতে আসেন।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.