এনবিআরআসন্ন বাজেটে সিগারেটসহ সব ধরনের তামাক পণ্যের ওপর বিদ্যমান শুল্কস্তর পুনর্বিন্যাস করা হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য ব্যারিস্টার জাহাঙ্গির হোসেন। 


তিনি বলেন, ‘পুনর্বিন্যাস করা শুল্কস্তরের মূল উদ্দেশ্য হবে সরকারের রাজস্ব বাড়ানো এবং তামাক-সিগারেট পণ্যের ভোক্তা কমানো। রাজস্ব বাড়িয়ে সিগারেট বিড়ি ও তামাকের ভোক্তা কমানোর জন্যই নতুন শুল্কস্তর নির্ধারণে কাজ করছে এনবিআর। আসন্ন বাজেটে তা ঘোষণা করা হবে।’

বুধবার (৫ এপ্রিল) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআর ভবনে আয়োজিত অর্থনীতি বিষয়ক রিপোর্টারদের সংগঠন ইকোনমিক রিপোর্টার’স ফোরামের (ইআরএফ) নেতাদের সঙ্গে প্রাক বাজেট আলোচনায় ইআরএফ   সদস্যদের প্রস্তাবের জবাবে এনবিআর সদস্য ব্যারিস্টার জাহাঙ্গির হোসেন এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, আগামী ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করতে এর কোনও বিকল্প নেই বলেও জানান তিনি। এ আলোচনায় এনবিআর চেয়ারম্যান ও সিনিয়র সচিব নজিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্যরাসহ ইআরএফ’র সভাপতি সাইফ ইসলাম দিলাল, সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। করদাতাদের কাছ থেকে বকেয়া কর আদায়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ‘হালখাতা’র আয়োজন করবে বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান মো.নজিবুর রহমান।

এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, ‘এ বছর পহেলা বৈশাখ উদযাপনে হালখাতা করবে এনবিআর। হালখাতায় ‘বকেয়া আদায় নয়, পরিশোধ’ শিরোনামে করদাতাদের কাছ থেকে বকেয়া কর সংগ্রহ করা হবে। ওইদিন করদাতাদের জন্য নতুন খাতা খোলা হবে। গ্রামগঞ্জের হালখাতার মতোই মিষ্টিও খাওয়ানো হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘‘একই পরিবারের সব সদস্য যদি কর দেন তাহলে ওই পরিবারকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে সম্মাননা দেওয়া হবে এবং ‘কর বাহাদুর’ উপাধি দেওয়া হবে।’’

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘ট্যাক্স ফাঁকি দিলে ধরা পড়বে, সেই আইন এনবিআরের আছে। করবান্ধব পরিবেশ গড়ে তুলতে আইনগুলো সংস্কার করা হচ্ছে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.