মুন্সীগঞ্জ সদরের পাচঘড়িয়াকান্দি এলাকায় কাউন্সিলর জাকির হোসেনের অত্যাচার সইতে না পেরে ইউসুফ আলী বেপারি (৫৮) নামে একজন আত্মহত্যা করেছে বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে নিজ ঘরে ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। জাকির হোসেন ৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এবং জেলা কমিউনিটি পুলিশের সদস্য।

নিহতের ছেলে নুরু ইসলাম বলেন, জাকির হোসেন আমার বাবাকে দীর্ঘদিন ধরেই অত্যাচার করে আসছিল। সে জোর করে ৫টি সাদা স্ট্যাম্পে আমার বাবার স্বাক্ষর নেয়। এ অভিযোগটি লিখিত আকারে ১৭ এপ্রিল জেলা প্রশাসকের কাছে জানানো হয়। ওই কাউন্সিলর আমার বাবাকে আত্মহত্যায় বাধ্য করেছে।

 

নিহতের ভাই মো. ইসমাইল জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে আমার ভাই জাকির হোসেনের অত্যাচার সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে। আমার ভাইয়ের হাতে একটি সুইসাইড নোট ছিল।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইউনুচ আলী জানান, পুলিশ খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। ময়না তদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর পুলিশ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে।

কাউন্সিলর জাকির হোসেন জানান, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে তা মিথ্যা। ইউসুফ আলীর পরিবারের সদস্যরা আমাকে যেভাবে দোষারোপ করছে তা ঠিক নয়।

অন্যদিকে, নিহতের স্ত্রী আছমা বেগম ১৭ এপ্রিল জেলা প্রশাসক বরাবর নিরাপত্তা চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ জানানো হয়। অভিযোগে কাউন্সিলর জাকির হোসনের বিরুদ্ধে ৫টি খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেন এবং দোকান বন্ধ করে দেওয়াসহ মামলা তুলে নেওয়ার হুমকি দেন।

জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা জানান, আমাকে ১৭ এপ্রিল যেই অভিযোগপত্র দেওয়া হয়েছিল আমি তার দ্রুত ব্যবস্থা নিই। দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল, তা আমি খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করি। কাউন্সিলর জাকির হোসেনকে ডেকে এনে, দোকান বন্ধ করতে নিষেধ করি এবং আইন নিজের হাতে তুলে নিতে বাধা প্রদান করি।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.