আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের চলতি মেয়াদেও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামীকে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে না। 

সরকারের চলতি মেয়াদেও নিষিদ্ধ হচ্ছে না জামায়াত

জামায়াতের চিহ্নিত মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের মুখোমুখি করে ইতোমধ্যে ফাঁসির রায় কার্যকর করা হলেও দলটিকে নিষিদ্ধের প্রশ্নে সরকারের শীর্ষপর্যায়ে এখনও ধীরে চলো নীতি অনুসরণ করা হচ্ছে। জামায়াত নিষিদ্ধের পর দেশে কী পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে, তা নিয়ে গভীর পর্যালোচনা চলছে সরকারের ভেতরে। সরকারের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সূত্র এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নির্বাহী আদেশে জামায়াত নিষিদ্ধের ব্যাপারে একেবারেই অনাগ্রহী ক্ষমতাসীনরা। সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের মতে, জামায়াতকে এখনও নিষিদ্ধ করা সম্ভব নয়। আর এ কারণেই নির্বাহী আদেশে এ সংগঠনটিকে নিষিদ্ধের দিকে ঝুঁকছে না সরকার। ফলে বিচারের মুখোমুখি করে দলটিকে নিষিদ্ধ করা হবে—এমন সিদ্ধান্ত পাকাপোক্ত থাকলেও এ মেয়াদে নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নিতে চায় না ক্ষমতাসীন দলটি।

নীতি-নির্ধারণী সূত্রগুলো বলছে, জামায়াতকে বিচারের মুখোমুখি করার জন্যে উপযোগী করে আইন প্রণয়ন করা হচ্ছে। তবে ঠিক কবে আইন প্রণয়ন করা হবে, সে বিষয়ে তার কোনও সুনির্দিষ্ট সময়সীমা জানাচ্ছেন দলটির নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের নেতারা।

সরকারের গুরুত্বপূর্ণ দুই মন্ত্রী বলেন, ‘জামায়াতের পক্ষের আন্তর্জাতিক শক্তিগুলোকে নিষ্ক্রিয় করে তোলা, জামায়াতপন্থী সংগঠনগুলোকে জামায়াতের ভেতর থেকে বের করে আনার বিষয়টি ঠিক করতে হবে আগে। এছাড়া জামায়াত নিষিদ্ধ হলে দলটির নেতারা যেন আর কোনও রাজনৈতিক দলে ঢুকে পড়তে না পারেন, তাও নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি জামায়াত নিষিদ্ধ হলে দেশের ভেতরে কোনও বৈরি  পরিস্থিতি সৃষ্টির আশঙ্কা আছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এসব বিষয় ভালোভাবে পর্যালোচনা করা হচ্ছে। তাই সময় একটু লাগছেই।’ ওই দুই মন্ত্রী আরও বলেন, ‘এ মেয়াদে জামায়াত নিষিদ্ধের সম্ভাবনা কম।’

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী কয়েকজন নেতাও জানিয়েছেন, জামায়াত নিষিদ্ধ করে উটকো একটি ঝামেলা আপাতত ঘাড়ে তুলে নিতে চায় না সরকার। এ জন্য আরও কিছু সময় দরকার।  খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নির্বাহী আদেশে জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা ‘রিস্কি’ মনে করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। তাই জামায়াত নিষিদ্ধ করতে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করেছে সরকার। এ প্রক্রিয়ায় যাওয়ায় কিছুটা ধীরগতিতে জামায়াত নিষিদ্ধ করার কার্যক্রম চলছে। সরকার মনে করছে, নির্বাহী আদেশে জামায়াত নিষিদ্ধ সম্ভব, কিন্তু আইনি প্রক্রিয়ায় গেলে কিছুটা বিলম্ব হলেও পাকাপোক্ত হয় কাজটি।

আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী সূত্রগুলো জানায়, জামায়াত নিষিদ্ধের আগে ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক সংগঠনগুলোর মানসিকতা কী, তাও নিশ্চিত হতে চায় সরকার।  এ জন্যে আওয়ামী লীগ ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলাপ-আলোচনাও চালিয়ে যাচ্ছে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.