ঢাকা: একাত্তরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যেমন বাংলাদেশের মানুষের ওপর পাশবিক নির্যাতন করেছিল, তেমনি ক্ষমতায় এসে বিএনপি জামায়াতও এ দেশের মানুষের ওপর নির্যাতন চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

 শনিবার দুপুরে রাজধানীর ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) মিলনায়তনে মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। ১৩ বছর পর এই সম্মেলন  হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, বিগত সময়ে বিএনপি-জামায়াত আন্দোলনের নামে যে সন্ত্রাস করেছে তা একাত্তরের পাকিস্তানি বাহিনীর নির্যাতনের কথা মনে করিয়ে দেয়। মুক্তিযুদ্ধের সময় এদেশীয় রাজাকার, আল বদর মানুষের ওপর নির্যাতন করেছে। আর স্বাধীনতার ৪৫ বছর পর আবার সেটা করেছে তাদের দোসররা।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ একমাত্র রাজনৈতিক দল যারা নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বাস করে। আমরা দলের গণতন্ত্র ও ঘোষণা পত্রে নারীর সমান অধিকার নিশ্চিত করেছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নারীদের ব্যবসা-বাণিজ্য আর রাজনীতি করতে সব জায়গায় বাধা দেয়া হয়। অথচ প্রথম ইসলাম গ্রহণকারী একজন নারী। ইসলামের প্রথম শহীদ হযরত সুমাইয়াও (রা) নারী। ইসলাম নারীদের সব ধরনের সুযোগ দিলে আমরা কেন তাদের আটকে রাখব ঘরের মধ্যে।

শেখ হাসিনা বলেন, নারীরা কষ্ট করে সন্তান লালন-পালন করবে আর নাম নেবে বাবা সেটা হবে না। আর সেই জন্যে আমাদের সরকার সন্তানের পরিচয়ে বাবার সঙ্গে মায়ের নাম রাখা বাধ্যতামূলক করেছে।

তিনি বলেন, সরকার মেয়েদের জন্য অধিক সুযোগ সুবিধা করে দিলেও তারা ব্যবসা বাণিজ্যে তেমন ভাবে এগিয়ে আসছে না। আমরা চাই দেশে নারী শিল্প উদ্যোক্তা গড়ে উঠুক।

বাংলাদেশ নয় গোটা বিশ্বে এখন নতুন উপসর্গ জঙ্গিবাদ। তারা মানুষ খুন করে কোন ইসলাম কায়েম করতে চায় সেটা তারাই জানে। কারণ মানুষ খুন করে কখনো বেহেশতে যাওয়া যায় না।

প্রতিটি মায়ের দায়িত্ব তার ছেলে-মেয়ে কোথায় যায়। কার সঙ্গে মেলামেশা করে সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। কারণ সন্তানের সবচেয়ে ভালো বন্ধু হবে মা। তাহলে তারা কখনও সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের পথে যাবে না।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.