দেশের বাইরে যেতে হলেই বিমান ছাড়া বিকল্প নেই। মাঝ আকাশে ভ্রমণের সময় দু’একজন যাত্রীর মৃত্যু ঘটতেই পারে। তখন কী করা হয়?
আমরা জানি প্রতি বছর হাজার হাজার মানুষ বিমানে সফর করেন। এসব হাজার হাজার যাত্রীদের মধ্যে দু’একজনের মৃত্যু মাঝ আকাশে হতেই পারে। জানা গেছে, বেশ কিছু বিমানের নকশা এমনভাবে করা হয়েছে, যাতে একটি মৃতদেহ তার কোনও এক স্থানে ভালোমতো শুইয়ে রাখা যায়। যতোক্ষণ না পর্যন্ত বিমানটি অবতরণ করছে, ততক্ষণ সেখানেই রেখে দেওয়া হয় মৃতদেহটিকে।
তবে এই বিষয়টি যাত্রীদের কাছে মোটেও সহনীয় বিষয় নয়। তাই বেশ কিছু বিমান সংস্থা ভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সিঙ্গাপুর এয়ার লাইন্সের বেশ কিছু বিমানে মৃতদেহ রাখার জন্য বিশেষ লকারের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে। অন্যান্য বিমানে যতোটা পারা যায় লোকচক্ষুর অন্তরালে রাখা হয় মৃতদেহটিকে।
এখন প্রশ্ন আসতে পারে মাঝ-আকাশে বিমান কর্মীরা তাহলে কী করেন কারোর আকস্মিক মৃত্যুতে? কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে বিমানে ফার্স্ট এইড পরিসেবা সব বিমানেই থাকে। প্রায় সব বিমান কর্মীই প্রাথমিক চিকিৎসার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হয়ে থাকেন। তারপরও যদি অতিরিক্ত চিকিৎসা পরিসেবার দরকার পড়ে, তাহলে বিমানকে নিকটতম যে কোনো বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করাতে হয়। একথা অবশ্য আমাদের সকলের জানা।
তবে সত্যিই যদি কেউ উড়ন্ত অবস্থাতেই বিমানে মারা যান, তাহলে তার দেহকে যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব অন্য যাত্রীদের থেকে দূরে রাখার ব্যবস্থা নিয়ে থাকে বেশিরভাগ বিমান সংস্থাই। বিশেষ করে বিজনেস ক্লাসে বেশিরভাগ সময় ফাঁকা জায়গা থাকে। সেখানেই ব্যবস্থা করা হয় মৃতদেহ রাখার জন্য।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.