ব্রাজিলের ফুটবলে তখন ঘোর অমানিশা। ২০১৪ বিশ্বকাপে নিজ দেশে সেমিফাইনালে ১-৭ গোলের হার, ২০১৫ কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় আর ২০১৬ কোপার গ্রুপ পর্বেই ছিটকে পড়া—গ্রহণকাল আর কাকে বলে! চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনা আবার ওই তিনটি টুর্নামেন্টেই খেলে ফাইনাল। না হয় কোনোবার চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি, তবু মাঠের ফুটবলে অন্তত ‘আলবিসেলেস্তে’দের কক্ষপথে থাকার প্রমাণ হয়ে আছে তা। এরপর বছরখানেকও পেরোয়নি। অথচ ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ফুটবলচিত্র কেমনভাবেই না বদলে গেল! বাংলাদেশ সময় কাল সকাল পৌনে ৭টায় প্যারাগুয়ের বিপক্ষে যখন মাঠে নামবে ‘সেলেসাও’রা, ২০১৮ বিশ্বকাপের নিশ্চিত টিকিটের হাতছানি হয়তো থাকবে। উল্টোরথে চেপে বসা আর্জেন্টিনা আজ রাত ২টায় বলিভিয়ার মুখোমুখি হবে জয়ের মরিয়া খোঁজে। ২০১৮ বিশ্বকাপ অংশগ্রহণ যে নইলে ঝুঁকির মধ্যে পড়ে যেতে পারে! ব্রাজিল ফুটবলকে আবার আলোর পথে নিয়ে আসার কৃতিত্ব লিওনার্দো বাচ্চির; সমর্থকদের কাছে যাঁর আদুরে নাম তিতে। সর্বশেষ কোপা শেষে কার্লোস দুঙ্গাকে বরখাস্ত করে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের দায়িত্ব দেওয়া হয় তাঁকে। ছয় খেলায় ৯ পয়েন্ট নিয়ে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ব্রাজিলের তখন তথৈবচ অবস্থা। তিতে সেই দলটিকে এরপর বাছাই পর্বে জেতান টানা সাত ম্যাচ; দেশটির ইতিহাসের আর কোনো কোচ যা পারেননি। তাতে ১৩ খেলায় ৩০ পয়েন্ট নিয়ে এখন লাতিন অঞ্চলে শীর্ষে ব্রাজিল; ৭ পয়েন্ট এগিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা উরুগুয়ের চেয়ে। এ রাউন্ডে কলম্বিয়ার কাছে ইকুয়েডর এবং ভেনিজুয়েলার কাছে চিলি হেরে গেলে কাল প্যারাগুয়ের বিপক্ষে জয়ে নিশ্চিত হয়ে যাবে ব্রাজিলের ২০১৮ বিশ্বকাপ খেলা।
সর্বশেষ ম্যাচে উরুগুয়েতে গিয়ে উরুগুয়েকে ৪-১ গোলে হারিয়ে এসেছে তিতের দল। তাঁর জয়ধ্বনি এখন চারদিকে। যদিও তিতে পা রাখছেন মাটিতেই, ‘লোকে যদি নিখুঁত কোচ চায়, তাদের অন্য কোথাও খুঁজে দেখা উচিত। কারণ কখনো না কখনো আমি ভুল করবই। ’ ব্রাজিলের ডিফেন্ডার মার্কিনোস ভালো খেলার কৃতিত্ব দিচ্ছেন পুরো দলকে, ‘সবাই মিলে চেষ্টা করছি বলেই আমরা ভালো খেলছি। শুধু ডিফেন্ডাররা রক্ষণকাজ করছে না, সবাই মিলেই করছে তা। নেইমার, ফিরমিনো, কৌতিনহোরা নিজেদের পজিশনে ভালো খেলছে; গোল করছে। পাউলিনহো, রেনাতো আগুস্তো, কাসেমিরোরা ডিফেন্ডারদের কাজ সহজ করার পাশাপাশি শুরু করছে আক্রমণ। সব মিলিয়ে দল খুব শক্তিশালী। ’ ১৩ খেলায় ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সাত নম্বরে থাকা প্যারাগুয়েকে সমীহই করছেন তিনি, ‘প্যারাগুয়ের বিপক্ষে খেলা খুব কঠিন। সাম্প্রতিক ম্যাচগুলোয় ওরা ভালো খেলছে। কোচ ফ্রান্সিসকো আরসে ব্রাজিলিয়ান ফুটবল খুব ভালো জানেন। আমি তাই সুন্দর এক ম্যাচের আশা করছি। সেখানে নিজেদের সেরাটা দিয়ে আমাদের জয় নিয়ে বেরিয়ে আসার সামর্থ্য রয়েছে। ’ বহিষ্কারাদেশের কারণে ডিফেন্ডার দানি আলভেসকে ঘরের মাঠের এ ম্যাচে পাচ্ছে না ব্রাজিল।
আর্জেন্টিনার সমস্যা এর চেয়ে অনেক গভীর। কোপা আমেরিকার পর নতুন কোচ এদগার্দো বাউসা এখনো বের করে আনতে পারছেন না দলের সেরাটা। সর্বশেষ ম্যাচে চিলিকে ১-০ গোলে হারিয়ে ২২ পয়েন্ট নিয়ে ‘আলবিসেলেস্তে’রা এখন তিন নম্বরে বটে। তবে স্বস্তির সুযোগ নেই। কারণ দুই থেকে ছয় নম্বরে থাকা পাঁচটি দলের পয়েন্টের পার্থক্য মোটে তিন। আজ বলিভিয়ার বিপক্ষে তাই জয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবার সুযোগ নেই আর্জেন্টিনার।
কিন্তু সে অভিযানে চ্যালেঞ্জ অনেক। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১২ হাজার ফুট ওপরে বলিভিয়ার এস্তাদিও এর্নান্দো সিলেসে খেলা সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। এখান থেকে ২০১০ বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ১-৬ গোলে হেরে যায় আর্জেন্টিনা। ২০১৪-র বাছাই পর্বে ১-১ গোলে ড্র করলেও ম্যাচের বিরতির সময় লিওনেল মেসির বমি করা কিংবা আনহেল দি মারিয়াকে অক্সিজেন দেওয়ার স্মৃতি নিশ্চয়ই তারা ভুলে যায়নি। একে তো এমন কন্ডিশন, তার ওপর এই ম্যাচে নিয়মিত অনেককে পাচ্ছেন না কোচ বাউসা। বহিষ্কারাদেশের জন্য নেই হাভিয়ের মাসচেরানো, গনসালো হিগুয়েইন, লুকাস বিলিয়া ও নিকোলাস ওতামেন্দি। হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে ডিফেন্ডার গ্যাব্রিয়েল মেরকাদো খেলতে পারছেন না। অনিশ্চয়তা হাঁটুর ইনজুরিতে পড়া আরেক ডিফেন্ডার এমানুয়েল মাসকে নিয়েও। ফরোয়ার্ড পাউলো দিবালাও তাই। ১৩ ম্যাচে মাত্র ৭ পয়েন্ট পাওয়া বলিভিয়ার না হয় পরের বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ নেই তেমন। কিন্তু আজ আর্জেন্টিনার পথে কাঁটা বিছিয়ে দিতে পারে তারা।
সে কাঁটা সরানোয় বাউসা বরাবরের মতোই তাকিয়ে থাকবেন ওই একজনের দিকেই—লিওনেল মেসি! ইএসপিএন, এএফপি

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.