নারী ও শিশুর উপর এসিড নিক্ষেপের মামলায় মৃত্যুদণ্ড হ্রাস করে আসামি মো. আব্দুর রাজ্জাককে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করেছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুই কিস্তিতে ওই টাকা ভিকটিমদের দেয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 



বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলামের ডিভিশন বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই রায় দেন। এছাড়া ওই আসামির কারাবাসকালীন সাজা হিসেবে গণ্যের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। 

মামলার বিবরণে জানা যায়, কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী থানার আন্ধারীঝাড় গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক দুইজন স্ত্রী থাকা অবস্থায় বিয়ে করেন একই গ্রামের হালিমা খাতুনকে। বিয়ের পর নানাভাবে হালিমা খাতুকে নির্যাতন করা হত। ওই নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে স্বামী আব্দুর রাজ্জাককে তালাক দেন। এতে রাজ্জাক ক্ষিপ্ত হয়ে ২০১০ সালের ১৪ নভেম্বর গভীর রাতে হালিমাদের বাড়িতে গিয়ে এসিড নিক্ষেপ করে। কিন্তু ওইদিন হালিমা ঘরে না থাকায় ওই এসিডে ঝলসে যায় তার মা জরিনা বেওয়া ও ভাগ্নি খুশি খাতুন। 

ওই বছরের ১৯ নভেম্বর রাজ্জাককে আসামি করে এসিড অপরাধ দমন আইনে মামলা দায়ের করে জরিনা বেওয়া। এই মামলায় ২০১১ সালের ২৬ জুন কুড়িগ্রামের এসিড অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনাল রাজ্জাককে মৃত্যুদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করে। সাজার এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে আসামি। পাশপাশি ডেথ রেফারেন্স আকারে মামলাটি হাইকোর্টে আসে। 

রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মো. মনিরুজ্জামান রুবেল ও আসামি পক্ষে ব্যারিস্টার এবিএম আলতাফ হোসেন শুনানি করেন। শুনানি শেষে হাইকোর্ট নিম্ন আদালতের সাজার রায় সংশোধন করে আসামিকে জরিমানা করে রায় দেয়।

মনিরুজ্জামান রুবেল বলেন, যাদের ওপর এসিড নিক্ষেপ করা হয়েছে তাদেরকে ওই ৫ লাখ টাকা প্রদানের জন্য আসামিকে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।  

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.