সরকার লাখ লাখ টাকা খরচ করে রাজধানীজুড়ে ফুটওভার ব্রিজ তৈরি করলেও অসচেতনতার কারণে তা ব্যবহার করছে না নগরবাসী। ফলে প্রতিনিয়ত ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা। অথচ নগরবাসীর একটু সচেতনতাই পারে এসব অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা কমাতে।


 ফুটওভারব্রিজ ব্যবহার না করায় বাড়ছে দুর্ঘটনা

বুধবার রাজধানীর কাকলী, মহাখালী, ফার্মগেট, বাংলামোটর, শাহবাগ, সাইন্সল্যাব, নিউমার্কেট এলাকা ঘুরে ফুটওভার ব্রিজ থাকা সত্ত্বেও অনেককে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হতে দেখা যায়।
অনেকেই ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছেন। তাদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে বেশির ভাগ মানুষই কথা বলতে রাজি হননি। আর যারা কথা বলেছেন, তারা ভুল স্বীকার করেছেন।

বাংলামোটরে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে রাস্তা পার হচ্ছিলেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম। ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করছেন না কেন, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আসলে কাজটি ঠিক হয়নি। তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে এভাবে রাস্তা পার হয়েছেন। ভবিষ্যতে আর ভুল হবে না।
কাকলী মোড়ে কথা হয় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শরীফুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, সচেতনতার অভাবে তারা এভাবে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হন। সাধারণত সময় বাঁচাতেই এটি করে থাকেন, যা ঠিক নয়।

বুধবার সন্ধ্যায় শাহবাগ এলাকায় মোবাইল ফোনে কথা বলা অবস্থায় রাস্তা পার হতে গিয়ে অল্পের জন্য বেঁচে যান মাহফুজ আলম নামের এক ব্যক্তি। মাহফুজ বলেন, 'আমার এক আত্মীয় ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি। তাকে দেখতে যাচ্ছি। কিন্তু অসচেতনতার কারণে তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে আমি নিজেই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছিলাম। আজ যে শিক্ষা হলো তাতে ভবিষ্যতে এ ভুল আর হবে না।'

শাহবাগ জোনের ট্রাফিক বিভাগের সার্জেন্ট সাইফুল ইসলাম এ বিষয়ে বলেন, বর্তমানে ঢাকা সিটিতে অধিকাংশ সড়ক দুর্ঘটনা হয় জনগণের অসচেতনতার কারণে। ফুটওভার ব্রিজ আছে, কিন্তু তারা ব্যবহার করছে না। তারা এটা বোঝেন না যে, সামান্য কয়েক মিনিট বাঁচাতে গিয়ে তারা জীবনের ঝুঁকি নিচ্ছেন। ঝুঁকিতে ফেলছেন পরিবারকেও।

তিনি আরও বলেন, 'আমরা সব সময় সবাইকে বলি, রাস্তা পারাপারে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করুন। কারণ আমরা যখন কোনো সিগন্যাল ছাড়ি, তখন মানুষের রাস্তা পারাপারের কারণে গাড়িগুলো সঠিক লেনে চলতে পারে না। এ ব্যাপারে সবার সচেতনতা দরকার।'

কিছুদিন আগেও ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করলে জরিমানা করতেন ম্যাজিস্ট্রেট। এটা বেশ কাজে দিয়েছিল। কিন্তু যখন ম্যাজিস্ট্রেট থাকেন, তখন জনগণ সেটা মানে। না থাকলে আবার আগের মতোই চলতে থাকেন। তাই সার্বক্ষণিক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিলে ভালো হয়, যাতে জনগণ অভ্যস্ত হয়ে ওঠে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহারে। আর জনগণ ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহারে অভ্যস্ত হলে অনাকাঙ্ক্ষিত সড়ক দুর্ঘটনা অনেকটাই কমে যাবে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.