বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের ও সংসদ বিষয়ক পরিষদের স্থায়ী কমিটির সভাপতি বর্ষীয়ান বাজনীতিবিদ মুক্তিযোদ্ধা সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এর মৃত্যুর পর গত ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে তার বিকৃত ছবি ও কু-মন্তব্য ফেসবুকে পোস্ট করা হয়। 

সুরঞ্জিতের বিকৃত ছবি ফেসবুকে পোস্ট করায় মামলা, গ্রেপ্তার ১

এতে আওয়ামী লীগ নেতা কর্মী ও মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ক্ষভের সৃষ্টি হয়। 'আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান' সংসদের মহেশপুর উপজেলা শাখার আহবায়ক শাহেদ মেহবুব রঞ্জু বাদী হয়ে বুধবার দুইজনকে আসামি করে মহেশপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামিরা হলেন, একই উপজেলার পাতিবিলা গ্রামের আব্দুল হান্নান ও মাসুদ আলম। পুলিশ মাসুদ আলমকে গ্রেপ্তার করেছে।  

মামলার বিবরণে জানাযায়, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ ও সংসদ বিষয়ক পরিষদের স্থায়ী কমিটির সভাপতি বষীয়ান রাজনীতিবিদ মুক্তিযোদ্ধা সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত গত ৫ ফেব্রুয়ারি সকালে মারা যান। বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে যখন দেশের রাজনৈতিক অঙ্গন শোকাহত ঠিক এসময় ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে মহেশপুরের পাতিবিলা গ্রামের মৃত খোদা বকস্ এর ছেলে আব্দুল হান্নান তার নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে প্রয়াত নেতা সুরনঞ্জিত সেন গুপ্ত’র ছবি বিকৃতি করে এবং কু-মন্তব্য লিখে পোস্ট করে। একই এলাকার মাসুদ আলম তার উপর কু-মন্তব্য করে। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে রাজনৈতিক মহলে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। 

এ ঘটনায় বিক্ষোদ্ধ হয়ে বুধবার দুপুরে আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদের মহেশপুর উপজেলা শাখার আহবায়ক শাহেদ মেহবুব রঞ্জু বাদী হয়ে আব্দুল হান্নান ও মাসুদ আলমকে আসামি করে মহেশপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। 

মহেশপুর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জানান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা বষীয়ান রাজনীতিবিদ মুক্তিযোদ্ধা সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এর মৃত্যুর পর তার বিকৃত ছবি ও কু-মন্তব্য ফেসবুকে পোস্ট করার অভিযোগে দুইজনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। মাসুদ আলম নামের এক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যজন পালাতক রয়েছে। তার গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা চলছে। 

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.