রাজধানীতে শুরু হয়েছে স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট নিয়ে সবচেয়ে বড় প্রদর্শনী। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজধানীর  বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) শুরু হওয়া তিন দিনব্যাপী এ মেলা চলবে শনিবার পর্যন্ত। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত।

বিআইসিসির শুরু হওয়া মেলার আগামীকাল শেষ দিন

প্রবেশমূল্য ২০ টাকা। তবে স্কুলশিক্ষার্থীরা ইউনিফর্ম পরে অথবা পরিচয়পত্র দেখিয়ে বিনামূল্যে প্রবেশ করতে পারবেন। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হতে শুরু করে মেলা প্রাঙ্গণ।

এরই মধ্যে বেশ কিছু ব্র্যান্ড মেলায় তাদের অফারগুলো ঘোষণা করতে শুরু করেছে, যা তিন দিন পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। মেলার আহ্বায়ক ও মেকার কমিউনিকেশনের পরিচালনা বিভাগের প্রধান নাহিদ হাসনাইন সিদ্দিকী বলেন, এবারের মেলায়ও নামিদামি সব দেশি-বিদেশি স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অংশ নিয়েছে। সঙ্গে রয়েছে ব্র্যান্ডগুলোর নানা ধরনের অফার এবং ডিসকাউন্ট, উপহার আর কুইজে পুরস্কার জেতার সুযোগ।
মেলায় এডাটা, স্যামসাং, হুয়াওয়ে, লিনেক্স মোবাইল, অপ্পো, সিম্ফনি, উই, লাভা, শাওমি, মাইসেল, মাইক্রোম্যাক্স, লেনোভো, গ্যাজেট গ্যাং সেভেন, সেলস্ট্রিম, কুলপ্যাড, ম্যাংগো, মেইজু, কিকশা ডটকম, আজকের ডিলের মতো প্রতিষ্ঠান ও ব্র্যান্ড অংশ নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মেলা শুরু হলেও আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয় বিকাল ৪টায়।

আনুষ্ঠানিকভাবে মেলার উদ্বোধন করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এছাড়া গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার ও বিডিওএসএনের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান বলেন, ২০০৯ সালে আমরা যখন ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের কাজ শুরু করি তখন থেকেই যুবসমাজের উদ্ভাবন ও তাদের সংযোগের আওতায় নিয়ে আসাটাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য ছিল; যাতে করে যুব সমাজকে উৎপাদনশীলতামুখী করতে পারি। স্মার্ট ডিভাইস বা অত্যাধুনিক মুঠোফোনই দূর যোগাযোগের মূল মাধ্যম হয়ে উঠছে আজ।

স্মার্টফোনের ব্যবহার বৃদ্ধিতে স্মার্টফোন ও ট্যাব এক্সপোর গুরুত্ব উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সাধারণ মানুষের কাছে অত্যাধুনিক পণ্যের ব্যবহার ও জনপ্রিয়করণের এক্সপো মেকারের মেলা আজ আমাদের বার্ষিক উপলক্ষ হয়ে উঠেছে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আজকে দেশে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা কমপক্ষে ২ কোটি ৭৫ লাখ। অত্যাধুনিক মুঠোফোন ব্যবহারের জন্য বিষয়বস্তু তৈরির জন্য উদ্যোগ নিয়েছি আমরা। মাতৃভাষায় কন্টেন্ট উন্নয়নের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের মাঝে স্মার্টফোন এবং স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার বাড়বে বলে আশা করছি। আমাদের হিসাব অনুযায়ী, ২০২০ সালে বাংলাদেশে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা দাঁড়াবে ৫ কোটি।

এছাড়াও আয়োজক প্রতিষ্ঠান এরই মধ্যে মেলার ফেসবুক পেজে একটি কুইজ প্রতিযোগিতারও আয়োজন করেছে। স্মার্ট ব্যাটল ২০১৭ নামের ওই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে জিতে নেয়া যাবে স্মার্টফোনসহ অন্যান্য পুরস্কার।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.