কম্পিউটারে বাংলা ভাষার ব্যবহার ডিজিটালের পথে এগোচ্ছে দেশ।



বাংলা ভাষার ব্যবহার সহজ হবে কম্পিউটারে


 তথ্যপ্রযুক্তিতে অগ্রগতিও বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছে। এ খাতে এখনও বাংলা ব্যবহারে বেশ পিছিয়ে বাংলাদেশ। এমন পরিস্থিতিতে বাংলার ব্যবহার বাড়াতে নতুন উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আগামী তিন বছরের মধ্যে ইংরেজির বদলে আরও বেশি বাংলায় হবে কম্পিউটিং। এ সময়ের মধ্যে কম্পিউটারের অধিকাংশ কাজে বাংলা ব্যবহার করতে পারবে মানুষ। এর মাধ্যমে বাংলাকে গ্গ্নোবাল প্ল্যাটফর্মে নেতৃস্থানীয় ভাষা হিসেবে স্থান করে নিতে আরও এক ধাপ এগোবে বাংলাদেশ।

গবেষণা ও উন্নয়নের মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলা ভাষা সমৃদ্ধকরণ প্রকল্পের আওতায় বাংলা কম্পিউটিংয়ের এ উদ্যোগ নিয়েছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ। ১৫৯ কোটি টাকা ব্যয়ের প্রকল্পটি ২০১৯ সালের জুনের মধ্যে বাস্তবায়ন শেষ হবে। আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করবে পরিকল্পনা কমিশন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)। তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, বাংলাদেশ ভাষাভিত্তিক একটি রাষ্ট্র। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে গত ৪৫ বছরে পরিকল্পিতভাবে এক টাকাও খরচ করেনি বাংলাদেশ। নষ্ট ওসিআর মেশিন কিনতে কোটি কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। অর্থ খরচ করে কি বোর্ড নকল করা হয়েছে। তিনি বলেন, সরকারিভাবে বাংলা ভাষা ব্যবহারের প্রথম পরিকল্পিত উদ্যোগ এটি। তবে এ কাজে অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে।

আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলা ভাষাকে অগ্রগামী হিসেবে ব্যবহার উপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য ১৬টি সফওয়্যারের উন্নয়ন করা হবে। এর মধ্যে বাংলা কর্পাস, বাংলা ওসিআর, বাংলা স্পিচ টু টেক্সট-টেক্সট টু স্পিচ, জাতীয় বাংলা কি বোর্ড, বাংলা স্টাইল গাইড, বাংলা ফন্ট এবং বাংলা মেশিন ট্রান্সলেটর। এসব সফটওয়্যার টুলস উন্নয়ন করলে আন্তর্জাতিকভাবে বাংলা ভাষা ব্যবহার সহজ হবে। পরবর্তী সময়ে প্রযুক্তি পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে আরও টুলসের উন্নয়ন করা হবে।

আইসিটি বিভাগের সচিব শ্যামসুন্দর শিকদার বলেন, কম্পিউটিংয়ে বাংলার ব্যবহার খুব কম। অধিকাংশ ক্ষেত্রে ইংরেজির মাধ্যমে কম্পিউটার ব্যবহার করা হচ্ছে। এ অবস্থা পরিবর্তনের জন্য নতুন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এটি বাস্তবায়িত হলে বিশ্ব দরবারের বাংলা ভাষা বিশেষ স্থান করে নেবে। একই সঙ্গে সাধারণ ব্যবহারকারীর জন্য কম্পিউটার ব্যবহার আরও সহজ হবে। তিনি বলেন, ২০০৯ সালে শুরু হওয়া ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে আরও এক ধাপ এগোবে বাংলাদেশ।

বিসিসির প্রকল্প প্রস্তাবে বলা হয়েছে, গবেষণা ও উদ্ভাবনের মাধ্যমে গ্গ্নোবাল প্ল্যাটফর্মে নেতৃস্থানীয় ভাষা হিসেবে বাংলা কম্পিউটিং প্রতিষ্ঠা করা হবে। আইসিটি সহায়ক বাংলা ভাষার বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য প্রমিত করা হবে। বাংলা কম্পিউটিংয়ের জন্য উপকরণ, প্রযুক্তি এবং বিষয়বস্তুর উন্নয়ন করার পরিকল্পনা রয়েছে। একই সঙ্গে আইসিটিতে বাংলা ভাষা সমৃদ্ধকরণ ও আধুনিকায়নের জন্য সমীক্ষা, জরিপ এবং গবেষণা ও উন্নয়ন পরিচালনা করা হবে বলে পরিকল্পনা কমিশনকে জানানো হয়েছে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.