গতকাল সোমবার নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মেয়র ও কাউন্সিলর পদপ্রার্থীরা প্রতীক পেয়েই নির্বাচনী প্রচারে নেমে পড়েছেন। সকালে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে নির্বাচনী কার্যালয়ে ছিল মেয়র, কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ও সমর্থকদের ভিড়। উৎসবমুখর পরিবেশে প্রতীক বরাদ্দ হলেও এই নির্বাচনে ১৭৪টি কেন্দ্রের সব কটিই ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করছে রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিস।


ঐক্যের আহ্বান করলেন আইভী, শঙ্কায় আছেন সাখাওয়াত হোসেন

প্রতীক বরাদ্দ নিতে মেয়র প্রার্থীদের সঙ্গে একজন এবং কাউন্সিলর প্রার্থীদের একা আসার জন্য বারবার মাইকে অনুরোধ করছিলেন কর্মকর্তারা। তবে সেই অনুরোধে কান দেননি বেশির ভাগ প্রার্থী। বিশেষ করে মেয়র পদে প্রধান দুই প্রার্থী আওয়ামী লীগের সেলিনা হায়াৎ আইভী ও বিএনপির সাখাওয়াত হোসেন খানের সঙ্গে বিপুলসংখ্যক কর্মী কার্যালয়ে ভিড় করেন। তাঁরা ‘নৌকা’ ও ‘ধানের শীষ’ এবং ‘আইভী’ ও ‘সাখাওয়াত’ এর নাম করে স্লোগান দেন।

প্রতীক পাওয়ার পরপর নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে বের হয়ে আইভী আওয়ামী লীগের সব পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের প্রতি ঐক্যের আহ্বান জানান। আর সাখাওয়াত অভিযোগ করেন, নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ (লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড) তৈরি হয়নি। এরপর দুই প্রার্থী বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন।
এবারের সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৭ জন মেয়র প্রার্থী, ১৫৬ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৩৮ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সকালে প্রতীক বরাদ্দের পর বিকেলের মধ্যেই বিভিন্ন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকেরা পোস্টার টানানো শুরু করেছেন। চলছে লিফলেট বিতরণ। অলিগলিতে কাউন্সিলর ও মেয়র প্রার্থীদের ব্যাজ পরে ঘুরতে দেখা গেছে বিভিন্ন বয়সের মানুষকে। প্রার্থীরা যেখানে যাচ্ছেন তাঁদের ঘিরে রাখছেন অনেক মানুষ। প্রার্থী কুশল বিনিময় করছেন, ভোট চাইছেন। অনেক প্রার্থীর সঙ্গে ভোটার ও কর্মী-সমর্থকদের ছবি তুলতে দেখা গেছে। কাউন্সিলর প্রার্থীদের পক্ষে ছোট ছোট জমায়েত ও মিছিল ছিল নগরের প্রায় সর্বত্রই।

মার্কা যা–ই হোক, আইভীকে ভোট দিন: প্রতীক পাওয়ার পর আইভী সাংবাদিকদের বলেন, নারায়ণগঞ্জের মাটিতে সন্ত্রাসের জায়গা হবে না। সন্ত্রাস নির্মূল করতে হবে। তিনি বলেন, ‘আইভীর ব্যক্তি ইমেজ ও আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক আলাদা কিছু নয়। দুটো একই বিষয়।’ আইভী সাংবাদিকদের কাছে তাঁর নির্বাচনী স্লোগান তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এবার তাঁর নির্বাচনী স্লোগান হলো, ‘নয় শঙ্কা, নয় ভয়, চাই শহর শান্তিময়’।

এরপর বিকেলে নগরীর ৬ নম্বর ওয়ার্ডের গোদনাইল এলাকায় গণসংযোগ করেন মেয়র প্রার্থী আইভী। সেখানে তিনি ভোটারদের উদ্দেশে পথসভায় বক্তব্য দেন। সংক্ষিপ্ত সমাবেশে আইভী বলেন, ‘গত নির্বাচনে দোয়াত-কলম ছিল, এবার নতুন মার্কা নৌকা পেয়েছি। আইভীকে ভোট দেবেন। মার্কা যাই হোক, আমি কিন্তু আইভীই। উৎসবমুখর পরিবেশে আমাকে ভোট দেবেন।’

পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন সাখাওয়াত: প্রতীক পেয়ে সাখাওয়াত সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচন কমিশনের প্রতি তাঁর আস্থার কথা জানিয়েছেন। তবে তিনি এ-ও বলেন, এখন পর্যন্ত নির্বাচনের পরিস্থিতি দেখে তাঁর মনে হয়েছে, নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ (লেবভল প্লেয়িং ফিল্ড) তৈরি হয়নি। কেননা, সরকারদলীয় প্রার্থী একের পর এক আচরণবিধি লঙ্ঘন করার পর নির্বাচন কমিশন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। তবে তাঁর দল ও তিনি এখনো পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন। তিনি দাবি করেন, ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। কোনো পক্ষপাতিত্ব না হলে, নির্বাচন সুষ্ঠু হলে ধানের শীষ বিজয়ী হবে। এরপর দুপুর থেকে বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেছেন সাখাওয়াত। এ সময় তিনি ধানের শীষের পক্ষে ভোট চান।

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির মেয়র প্রার্থী মাহবুবুর রহমান ইসমাইল গতকাল গণসংযোগ করেছেন। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করে নির্বাচনে থাকবেন বলে জানিয়েছেন ২০-দলীয় জোটের শরিক দল বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির প্রার্থী রাশেদ ফেরদৌস ও লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) প্রার্থী কামাল প্রধান। অবশ্য দুই দলই গতকাল তাঁদের বহিষ্কার করেছে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.