বাংলাদেশ ব্যাংকের পাঁচ কর্মকর্তার অবহেলা ও অসতর্কতার কারণেই রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনা ঘটেছে। তবে ব্যাংকের বাইরের অপরাধীরাই বিশ্বজুড়ে চাঞ্চল্যকর এ চুরির মূল হোতা।




 এ ঘটনা তদন্তে সরকার গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গর্ভনর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানিয়েছেন।

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনেও এ পাঁচ কর্মকর্তার অবহেলাকে দায়ী করা হয়েছে। তবে রয়টার্সকে তাদের নাম জানাননি সাবেক গভর্নর। তিনি জানান, এসব কর্মকর্তা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিম্ন থেকে মধ্যমসারির। তবে তারা এ অপরাধের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত নন।

এ বিষয়ে রয়টার্সের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি মন্তব্য করতে সম্মত হননি। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অপর এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, চুরির ঘটনায় এখন পর্যন্ত ব্যাংকের কারও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

গত মে মাসে তদন্ত কমিটি সরকারের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করে। রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পর থেকে মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন এ বিষয়ে এতদিন কোনো গণমাধ্যমে কোনো মন্তব্য করেননি। তার অফিসে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বার্তা সংস্থাটিকে বলেছেন, ফিলিপাইনের ব্যাংক আরসিবিসি চুরির অর্থ ক্যাসিনোতে স্থানান্তরের জন্য সম্পূর্ণ দায়ী।

সরকার এখন পর্যন্ত এ তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি। সম্প্রতি ফিলিপাইন এ প্রতিবেদন চাইলেও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত তা নাকচ করে দিয়েছেন। তদন্ত কমিটির প্রধান মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন অবশ্য প্রতিবেদন প্রকাশ করা উচিত বলে রয়টার্সকে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, এটি সরকার প্রকাশ করলে বাংলাদেশ ব্যাংকের অবস্থান আরও শক্তিশালী হবে।

গত ফেব্রুয়ারিতে হ্যাকাররা সুইফটের মাধ্যমে ভুয়া বার্তা পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ১০ কোটি ১০ ডলারের মধ্যে আট কোটি ১০ লাখ ডলার আরসিবিসি ব্যাংকের বিভিন্ন হিসাবে স্থানান্তর করা হয়। পরে এসব অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ উত্তোলন করে নেয় হ্যাকাররা। এরই মধ্যে ফিলিপাইনে পাঠানো অর্থের মধ্যে এক কোটি ৫২ লাখ ডলার ফেরত পাওয়া গেছে। বাকি অর্থ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

বিশ্বব্যাপী আলোচিত এ সাইবার হ্যাকিংয়ের ঘটনার নয় মাস পরও এফবিআই, ইন্টারপোলসহ বাংলাদেশ ও ফিলিপাইনের গোয়েন্দারা এর হোতাদের কোনো ক্লু খুঁজে পাননি। এর পেছনের মূল ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানা না যাওয়ায় মামলার তদন্তে তেমন অগ্রগতি হয়নি।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.