রংপুরে বেসরকারি নর্দান নার্সিং ইনস্টিটিউটের দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে এলাকার সন্ত্রাসী ও মাদকাসক্ত একটি গ্রুপকে নিয়ন্ত্রণসহ নানা অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ তুলেছেন ওই প্রতিষ্ঠানের কয়েক শিক্ষার্থী ও স্থানীয়রা।






এছাড়া আলমগীর শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলেও পুলিশ ও তার সহপাঠীরা জানিয়েছেন।

গত বুধবার পুলিশ তাকে রিমান্ডে নিলেও প্রথম দিনের জিজ্ঞাসাবাদে সে মুখ খোলেনি।

এদিকে, বৃহস্পতিবারও মামলার অপর আসামিদের গ্রেফতার এবং এর সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিতের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে বিভিন্ন সংগঠন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই প্রতিষ্ঠানের বেশ কয়েক শিক্ষার্থী জানান, মেয়েদের প্রতি আসক্তি ছিল আলমগীরের। এর আগেও সে কয়েক মেয়েকে তার কক্ষে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে। কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে কেউ মুখ খোলেনি। এ ছাড়া আলমগীর নার্সিং ইনস্টিটিউটের কাছাকাছি সর্দারপাড়ায় যে মিরাজ ছাত্রাবাসে থাকত, সেই এলাকার সন্ত্রাসী ও মাদকাসক্ত একটি গ্রুপকে সে নিয়ন্ত্রণ করত। এ কারণে তার বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলতে সাহস পেত না। তার বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে তাকে ছাত্রাবাসে এনে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করা হতো বলেও এলাকাবাসী অভিযোগ করে।

আলমগীর শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে পুলিশের একটি সূত্র এবং নার্সিং ইনস্টিটিউটে তার সহপাঠীরা জানিয়েছে। আলমগীরের পরিবারের সবাই জামায়াত-শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বিষয়টি আরও নিশ্চিত করেছেন জলঢাকা উপজেলার শিমুলগাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হামিদুর রহমান।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, আলমগীরের বাবা ইয়াকুব আলীসহ পরিবারের সবাই জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অভিযুক্ত আরও চার আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। উদ্ধার করা যায়নি দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের পর মোবাইল ফোনে ধারণ ভিডিও ছবি। এসব ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দিতে পারে বলে ধারণা করছে ধর্ষণের শিকার দুই ছাত্রীর পরিবার।

তারা আসামিদের গ্রেফতার এবং ছবিগুলো উদ্ধারে প্রশাসনকে আরও তৎপর হওয়ার আহ্বান জানান।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও রংপুর কোতোয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) আজিজুল ইসলাম জানান, আলমগীরকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে। তবে রিমান্ডের প্রথম দিন সে মুখ খোলেনি।

তিনি বলেন, 'মামলার অন্য চার আসামিকে গ্রেফতারে কয়েকটি টিম বুধবার রাতভর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়েছে। আসামিরা ঘন ঘন স্থান পরিবর্তন করায় তাদের কাউকেই গ্রেফতার করা যায়নি।'

তবে খুব দ্রুত তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে বলে তিনি জানান।

এদিকে, আসামিদের গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বৃহস্পতিবার রংপুর প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ও বাংলাদেশ নারীমুক্তি কেন্দ্র।

নারীমুক্তি কেন্দ্রের জেলা দপ্তর সম্পাদক কামরুন্নাহার শিখার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন বাসদ (মার্ক্সবাদী) জেলা কমিটি সদস্য পলাশ কান্তি নাগ, ছাত্র ফ্রন্ট জেলা কমিটির সদস্য মনোয়ার হোসেন, ইমরান সরকার, নারীমুক্তি কেন্দ্রের জেলা সংগঠক নন্দিনী দাস প্রমুখ।

গত ২৭ অক্টোবর রাতে বন্ধুদের কাছে ছাত্রাবাসে নোট আনতে গিয়ে রাতভর ধর্ষণের শিকার হন নর্দান নার্সিং ইনস্টিটিউটের দুই ছাত্রী।

এ ব্যাপারে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার বাঁশদহ গ্রামের আলমগীর হোসেন, মো. শাকিল, মো. পলাশ, মো. শাহ আলম ও মো. মানিক মিয়া নামে চার যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করে ধর্ষণের শিকার এক ছাত্রী।


Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.