ভারতের দিল্লির বায়ুদূষণ ভয়াবহ পর্যায়ে পৌঁছেছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দিল্লির সব স্কুল।





দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল রোববার রাজধানী গ্যাসচেম্বারে রূপান্তরিত হয়েছে মন্তব্য করে তিনি আগামী তিনদিন সব স্কুল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন।

আগের দিন দিল্লির প্রায় ১৮শ’ স্কুল বন্ধ রাখতে বলা হয়েছিল। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সোমবার এসব স্কুল খুলে দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে অবস্থা আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে।

রোববার মন্ত্রিসভার বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী স্কুল ছাড়াও আগামী ১০ দিন সব ধরনের নির্মাণকাজ বন্ধ রাখতে বলেছেন। এ ছাড়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে আবর্জনা পোড়ানো। তিনি বর্তমান এ সংকটকে অঘোষিত জরুরি অবস্থা বলেছেন।

কেজরিওয়াল বলেন, 'পাঞ্জাব ও হরিয়ানা রাজ্যের কৃষকরা তাদের উৎপাদিত অতিরিক্ত ফসল পুড়িয়ে ফেলার কারণেই বাতাসে দূষিত পদার্থ বাড়ছে। এর সঙ্গে সদ্য অনুষ্ঠিত দীপাবলি উৎসবে আতসবাজি পোড়ানোর ফলেও বাতাস বিষাক্ত হয়েছে। এ কারণে তিনি যাবতীয় জেনারেটর না চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন।'

মন্ত্রিসভার বৈঠকে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ব্যবহার করে বাতাসের সূক্ষ্ম কণা সরানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এমনকি আকাশপথে পানি ফেলারও পরিকল্পনা রয়েছে। একই সঙ্গে দিল্লির উপকণ্ঠে অবস্থিত বদরপুর তাপবিদ্যুৎকেন্দ্র ১০ দিন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এদিকে ভয়াবহ বায়ুদূষণের কারণে শ্বাসকষ্ট ও এলার্জিজনিত নানা সমস্যায় ভুগছে দিল্লিবাসী। বেশি দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে বৃদ্ধ ও শিশুরা। 

বসন্তকুঞ্জের ফোর্টিস হাসপাতালের চিকিৎসক রাহুল নাগপাল বলেছেন, অ্যাজমা, শ্বাসকষ্ট এবং চোখ ও নাকের এলার্জিজনিত রোগীর সংখ্যা ৬০ শতাংশ বেড়ে গেছে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.