পুলিশ পাহারার মধ্যেই হাতকড়া দিয়ে গলা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছে ডাকাতি মামলার এক আসামি।







 শনিবার দুপুরে মহানগর হাকিম আদালতের সপ্তমতলার একটি বাথরুমে এ ঘটনা ঘটে। আসামি মাসুদুর রহমান ওরফে সুমনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে রামপুরা থানার একটি ডাকাতি মামলার আসামি।

পুলিশ জানায়, ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যায় রামপুরার উলন রোডের একটি বাসায় ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ঘটনার দু’দিন পর চিহ্নিত মাসুদুর রহমান ওরফে কেইট্টা সুমনসহ দুই ডাকাত সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের দু’দিনের রিমান্ডে নিলে সুমন ডাকাতির কথা স্বীকার করে। শনিবার দুপুরে তাকে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিতে আদালতে হাজির করা হয়।

রামপুরা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) এমদাদুল হক বলেন, আসামিকে আদালতের সপ্তমতলায় ম্যাজিস্ট্রেটের খাসকামরার সামনে নেওয়া হলে সে বাথরুমে যাওয়ার কথা বলে। একজন কনস্টেবল তাকে বাথরুমে নিয়ে যান। ওই সময় সে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাতকড়া দিয়ে নিজের গলা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। বিষয়টি দেখার সঙ্গে সঙ্গে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নাক, কান ও গলা বিভাগের চিকিৎসক আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, ওই আসামির গলার অনেকটা কেটে গেছে। ক্ষতস্থানে সেলাই করা হয়েছে। তবে সে শঙ্কামুক্ত।

রামপুরা থানার ওসি প্রলয় কুমার সাহা জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই আসামিই স্বীকার করেছে, হাতকড়া দিয়ে সে গলা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। তার কাছে ব্লেডজাতীয় কিছু ছিল কি-না, তা যাচাই করা হচ্ছে। এ ছাড়া তার আত্মহত্যার চেষ্টার কারণও জানার চেষ্টা চলছে।

গত ১৩ নভেম্বর ঢাকার আদালত থেকে রুবেল নামের বাড্ডা থানার একটি ধর্ষণ মামলার আসামি পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাতকড়া নিয়েই পালিয়ে যায়। ওই আলোচনার মধ্যেই এবার পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে আরেক আসামি আত্মহত্যার চেষ্টা চালাল।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.