পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের প্রাক্তন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার পরিদর্শনে গিয়ে স্মৃতিকাতর হয়ে পড়েন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।





বঙ্গবন্ধু তার জীবনের একটি বড় অংশ এই কারাগারের যে কক্ষে কাটিয়েছেন; সেখানে গিয়ে তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। ওই কক্ষ ঘিরে গড়ে তোলা শেখ মুজিবুর রহমান কারা স্মৃতি জাদুঘর ঘুরে দেখার সময় বঙ্গবন্ধুকন্যার চোখেমুখে ছিল বিষাদের ছায়া।      

শনিবার বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে ছোট বোন শেখ রেহানা ও তার ছেলে রাদওয়ান সিদ্দিক মুজিব ববিকে সঙ্গে নিয়ে প্রাক্তন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যান প্রধানমন্ত্রী। কখনও গুঁড়ি গুঁড়ি, কখনও মাঝারি বৃষ্টি মাথায় নিয়েই তিনি কারাগারের ভেতরের বিভিন্ন ঐতিহাসিক জায়গা ঘুরে দেখেন।

কারাগারে প্রবেশের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথমেই যান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কারা স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শনে। জাদুঘরের সামনে স্থাপিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান তিনি। এরপর শেখ রেহানা ও ভাগ্নে রাদওয়ান সিদ্দিক মুজিব ববিকে নিয়ে কারা স্মৃতি জাদুঘরের ভেতরে ঢোকেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে রক্ষিত কারাবন্দি থাকা অবস্থায় বঙ্গবন্ধুর ব্যবহৃত চৌকি, টেবিল, চেয়ার, হাঁড়ি-পাতিল ও তৈজসপত্রসহ বিভিন্ন জিনিস খুঁটে খুঁটে দেখার সময় বাবার কারাজীবনের নানা স্মৃতিচারণ করেন শেখ হাসিনা।

বঙ্গবন্ধু কারা স্মৃতি জাদুঘর থেকে বেরিয়ে পুরনো এই কারাগারকে ঘিরে নেওয়া নতুন পরিকল্পনার নকশাও দেখেন প্রধানমন্ত্রী।

গত জুলাইয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার কেরানীগঞ্জে স্থানান্তরের পর পুরনো এই কারাগারের জায়গায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কারা স্মৃতি জাদুঘর ও জাতীয় চার নেতা কারা স্মৃতি জাদুঘর স্থাপন করা হয়। এ ছাড়া ওই জায়গায় একটি আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন বিনোদনকেন্দ্র গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

কারা অধিদফতরের মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন সেই পরিকল্পনার নকশার বিভিন্ন অংশ প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরেন। এ সময় ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে কারাগারে আয়োজিত ‘সংগ্রামী জীবনগাথা’ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনীও ঘুরে দেখেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী পরে কারাগারের ভেতরে স্থাপিত জাতীয় চার নেতা কারা স্মৃতি জাদুঘরে যান। প্রবেশমুখেই রয়েছে জাতীয় চার নেতাকে হত্যার পর লাশ হস্তান্তরের আগ পর্যন্ত যে জায়গাটিতে চার নেতার মরদেহ রাখা হয়েছিল; তার রক্তাক্ত স্মৃতিচিহ্ন। জাদুঘরে প্রবেশের আগে ওই জায়গাটিতে এসে মুহূর্তের জন্য থেমে যান প্রধানমন্ত্রী। জাদুঘর প্রাঙ্গণে থাকা জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে তিনি শ্রদ্ধা জানান। এরপর পাশাপাশি তিনটি কক্ষের সেলে স্থাপিত ‘সৈয়দ নজরুল ইসলাম ও তাজউদ্দীন আহমদ স্মৃতি নির্দশন গ্যালারি’, ‘এ এইচ এম কামারুজ্জামান স্মৃতি নির্দশন গ্যালারি’ এবং ‘এম মনসুর আলী স্মৃতি নির্দশন গ্যালারি’ও পরিদর্শন করেন। এই কক্ষগুলোয় বন্দিজীবনে জাতীয় চার নেতার ব্যবহার্য বিভিন্ন জিনিসপত্রও দেখেন প্রধানমন্ত্রী। 

প্রধানমন্ত্রীর কারাগার পরিদর্শনের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, স্থানীয় এমপি হাজি মোহাম্মদ সেলিম, আওয়ামী লীগ নেতা ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ও ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. এ কে এম আবদুল মোমেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.