সারা দিন ঘরে যেমন তেমন, বাইরে বেরোনোর আগে তো কিছুটা সাজগোজ লাগেই। কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, বিয়েবাড়ি, পার্টি তো আছেই—নিদেনপক্ষে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডাতেও একটু তো পরিপাটি হয়ে হাজির হতে হয়। এদিকে কম বয়সে ত্বক স্পর্শকাতর হয়ে থাকে—তাই কম সাজার পরামর্শ দিয়ে থাকেন রূপবিশেষজ্ঞরা। একটু বুদ্ধি খাটিয়ে সাজতে পারলেই সারা দিনের ঝক্কি-ঝামেলা সামলে ঝটপট করে নিতে পারেন পরিপাটি সাজ।


সাজের কিছু টিপস



সাজের কিছু টিপস। এগুলো মেনে শত ব্যস্ততার মধ্যেও নিজেকে তৈরি করে নিতে পারবেন সুন্দর রূপে।


মুখ: 
এই আবহাওয়ায় বাড়তি শুষ্ক ভাব দেখা দেয় ত্বকে। তাই মেকআপ করার আগে মুখ হাইড্রেটিং ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। তারপর ময়েশ্চারাইজ করে নিলেই ত্বক তৈরি হবে মেকআপের জন্য। তারুণ্যে ত্বক অনেক বেশি স্পর্শকাতর থাকে বলে মেকআপের আগে প্রাইমিংটা জরুরি। এতে অন্যান্য প্রসাধন সরাসরি ত্বকের সংস্পর্শে আসে না। তাই ক্ষতি কম হয়। প্রাইমারের বদলে টিন্টেড ময়েশ্চারাইজারও চলতে পারে। মেকআপে হালকা বেসই জুতসই। এ ক্ষেত্রে বিবি কিংবা সিসি ক্রিম সবচেয়ে ভালো। সঙ্গে দিতে পারেন হালকা ফেস পাউডার।


ঠোঁট: 
ঠোঁটে হালকা রঙের ময়েশ্চারাইজিং লিপস্টিক দিতে পারেন। লিপস্টিক লাগাতে না চাইলে রঙিন লিপবাম দিতে পারেন। এতে বেশ স্বাভাবিক দেখাবে ঠোঁট।


লিপবামেই হতে পারে ঠোঁটের সাজচোখ:
চোখের সাজ নিয়ে মজা হতে পারে। আইশ্যাডোর ঝামেলায় না গিয়ে কোবাল্ট ব্লু, সানশাইন ইয়েলো থেকে শুরু করে রুপালি কিংবা সোনালি আইলাইনার ব্যবহার করতে পারেন৷ ভ্রু দুটির আকৃতি যাতে ঠিক থাকে সেদিকটাও খেয়াল রাখতে হবে। আর চোখের পাতায় দুই বা তিন পরত মাশকারাই পূর্ণ করতে পারে চোখের সাজ।


চুল: 
চুলে খুব বেশি স্ট্রেইটনার বা কার্লার ব্যবহার না করাই ভালো। তবে বেঁধে রাখতে চাইলে ব্রেইড কিংবা পনিটেইল করতে পারেন। মিল্কম্যান, টুইস্টেড কিংবা ফিশটেইল ব্রেইডের পাশাপাশি বাবল, পুফড কিংবা স্কাই হাই পনিটেইল তরুণীদের বেশ দেখায়।


পোশাক: 
ক্লাস কিংবা আড্ডায় সালোয়ার-কামিজ আরামদায়ক। এতে যাঁরা খানিকটা পশ্চিমা ছোঁয়া দিতে চান, তাঁরা লম্বা কুর্তার সঙ্গে জিনস কিংবা পালাজ্জো পরে তৈরি করতে পারেন নিজস্ব স্টাইল। সঙ্গে মানানসই স্কার্ফও চলতে পারে। ক্রপ টপের সঙ্গে লং ফ্লেয়ারড স্কার্টও চলবে। পাশ্চাত্য ঘরানার পোশাকে যাঁরা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন, তাঁরা চাইলে জিনসের সঙ্গে টপস কিংবা শার্ট পরতে পারেন। কাট, প্রিন্ট ও প্যাটার্নের বৈচিত্র্য পুরো লুকে যোগ করতে পারে বাড়তি আবেদন। এ ক্ষেত্রে কোয়ার্কি কিংবা ডুডল প্রিন্টের পোশাক ফ্যাশন এখন জনপ্রিয়। আর অনুষ্ঠানে ক্ল্যাসিক ডিজাইনের জমকালো সালোয়ার-কামিজ ছাড়াও চলতে পারে এমবেলিশড জ্যাকেট, লং কুর্তা অথবা বেল্টেড শাড়ি। পাশাপাশি কেপড লং ড্রেস এবং গাউনও এখন বেশ চলছে।


অনুষঙ্গ: 
পোশাক যা-ই হোক সঙ্গে চাই মানানসই অনুষঙ্গ। প্রতিদিন ব্যবহারের জন্য স্লিক ডিজাইনের চেইন অ্যাকসেসরিজ খুব চলছে এখন। স্কিনি চেইন কাফ, নেকলেস, ব্রেসলেট ছাড়াও চলতে পারে চেইনের অ্যাঙ্কলেট। আর উত্সব উদ্‌যাপনে একটা স্টেটমেন্ট পিস নেকলেসই যথেষ্ট। এ ছাড়া বডি চেইন, সেপটাম রিং, ইয়ার কাফ দিয়েও হয়ে উঠতে পারেন হাল আমলের ট্রেন্ডি তরুণী।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.