এক মঞ্চে দুই ফার্স্ট লেডি। একজন সাবেক আর একজন বর্তমান। যুক্তরাষ্ট্রের এবারকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী সাবেক ফার্স্ট লেডি হিলারি ক্লিনটনের পক্ষে ভোট চাইতে মঞ্চে ওঠেন বিদায়ী ফার্স্ট লেডি মিশেল।



স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নর্থ ক্যারোলাইনার ওই নির্বাচনী সমাবেশের মঞ্চে উঠে মিশেল শতমুখ  প্রশংসায় ভাসালেন হিলারিকে। মার্কিন ভোটারদের বললেন, যুক্তরাষ্ট্রের কমান্ডার ইন চিফ হওয়ার জন্য সব দিক থেকে হিলারি প্রস্তুত হয়েই আছেন। তিনি প্রেসিডেন্ট ওবামা কিংবা বিল ক্লিনটনের চেয়েও ভালো প্রেসিডেন্ট হবেন। তাকে সেই সুযোগ দিতে হবে আমাদেরই। আসুন আমরা হিলারিকেই প্রেসিডেন্ট বানাই। 





ভোটের বাকি আর মাত্র ১০ দিন। এমন মোক্ষম সময়ে হিলারির পক্ষে কোমর বেঁধে মাঠে নামলেন মিশেল। প্রেসিডেন্ট ওবামা আগেই নেমেছেন প্রচারে। গাধা প্রতীকের পক্ষে সেই প্রচারে এবার যেন ঘোড়ার গতি আনলেন ওবামাপত্নী। খবর বিবিসি, গার্ডিয়ান ও পিটিআইর। 

নর্থ ক্যারোলাইনার নির্বাচনী প্রচারণায় মিশেলের আগমনের খবর চাউর ছিল আগে থেকেই। এর আগেও হিলারির পক্ষে প্রচার চালিয়েছেন মিশেল। তবে এতদিন একই মঞ্চে একসঙ্গে ওঠা হয়নি দু'জনের। ফলে নর্থ ক্যারোলাইনার এই প্রচারণা নিয়ে সবারই আগ্রহের মাত্রা ছিল বেশি। সেই আগ্রহের মধু মিলল যখন দুই ফার্স্ট লেডি মঞ্চে এসেই একে অপরকে আলিঙ্গন করলেন পরম বন্ধুত্বে, হাস্যোজ্জ্বল মুখে। এ সময় দুই ফার্স্ট লেডিকে করতালি দিয়ে শুভকামনা জানান লরেন্স জুয়েল ভ্যাটেরান মেমোরিয়াল কনসোর্টিয়ামে আসনগ্রহণকারী ১১ হাজার দর্শক। 

মঞ্চে উঠে হিলারিই প্রথমে প্রশংসা করেন মিশেল ওবামার। বিশেষ করে বিশ্বব্যাপী নারী ও মেয়েদের অধিকারের পক্ষে যেভাবে মিশেল কথা বলছেন, তার জন্য ধন্যবাদ জানান তাকে। তার নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বী রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনা করে হিলারি বলেন, 'কথাগুলো বলতে চাইনি। কিন্তু নিশ্চিতভাবেই নারী ও মেয়েদের জন্য সম্মান ও মর্যাদার বিষয়টিও এখন নির্বাচনের একটি বিষয়। আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই আমাদের ফার্সদ্ব লেডিকে যিনি এই মৌলিক মূল্যবোধকে শক্তভাবে সমর্থন করেছেন।' 

সমাবেশে হিলারিকে ভোট দেওয়ার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানান মিশেল ওবামা। বিশেষ করে হিলারিকে জেতাতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন নারীদের প্রতি। নারীদের ব্যাপারে অশ্লীল মনোভাব পোষণকারী ট্রাম্পের একের পর এক যৌন নিপীড়নের ঘটনার ভিডিও টেপ ফাঁস হওয়ার পর তার কঠোর সমালোচকদের একজন মিশেল। ট্রাম্পের নাম উল্লেখ না করেই উপস্থিত জনতাকে মিশেল প্রশ্ন করেন, তারা তাদের মেয়েদের সামনে কোন নেতৃত্বের প্রতিনিধিত্ব করতে চান। মিশেল বলেন, 'আমরা এমন একজন প্রেসিডেন্টকে চাই যিনি তার কাজটি গুরুত্ব দিয়ে করবেন এবং ওই কাজ ভালোভাবে করার জন্য যার উপযুক্ত মেজাজ ও পরিপকস্ফতা রয়েছে। আমরা এমন একজনকে চাই, যিনি দায়িত্ব পালনে অটল থাকবেন। যার প্রতি আমরা পারমাণবিক অস্ত্র প্রসঙ্গেও আস্থা রাখতে পারব। আমি আপনাদের সামনে মিথ্যা বলব না। আমি সর্বান্তকরণে মনে করি, হিলারি ক্লিনটনই সেই প্রেসিডেন্ট হবেন।'

শুধু তাই নয়, হিলারিকে মার্কিন ইতিহাসে প্রেসিডেন্ট পদে সবচেয়ে যোগ্য প্রার্থী হিসেবেও বর্ণনা করেন মিশেল। তিনি বলেন, হিলারির মতো এত বেশি যোগ্য প্রার্থী আমাদের জীবদ্দশায় আর কেউ আসেননি। কারণ, তিনি ছিলেন স্বনামধন্য আইনজীবী, একজন আইন শিক্ষক, আরকানসা রাজ্যের ফার্স্ট লেডি, যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি, সিনেটর এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তার চেয়ে অভিজ্ঞ কেউ কোথাও নেই। 

ট্রাম্প ও হিলারির মধ্যে তুলনা করে মিশেল বলেন, হিলারি হবেন একজন শক্তিশালী, গতিশীল এবং উজ্জীবিত প্রেসিডেন্ট। বিপরীতে ট্রাম্প উগ্র ও হতাশাবাদী। 

ওবামাপত্নী বলেন, হিলারি এতদূর এসেছেন, তার কাজ তিনি করেছেন। এবার আমাদের পালা। তাকে জয়যুক্ত করাতে হবে। আসুন আমরা হিলারিকেই প্রেসিডেন্ট বানাই। 

২০০৮ সালের প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে স্বামী বারাক ওবামার দলীয় প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন হিলারি। ওই সময় হিলারির কিছু সমালোচনাও করেছিলেন মিশেল। তবে গতকালের মঞ্চে সেই সব তিক্ততাকে অনেক দূরে ভাসিয়ে দিয়েছেন মিশেল ও হিলারি। 

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.