টঙ্গির টাম্পাকো ফয়েলস কারখানার বিস্ফোরণে আহত মনোয়ার হোসেন(৪৮) হাসপাতাল বেডে শুয়ে শুয়ে আর্তনাদ করে কেঁদে কেঁদে বলছিলেন, ধনীদের সব কথাই সবাই শোনে কিন্তু গরীবের আর্তনাদ কেউ শোনেনা।




মনোয়ার জানান, ১৯৯৬ সালের ১৬ জুন থেকে এই কারখানায় কাজ করে আসছেন। একজন হেলপার হিসেবে যোগদান করেছিলেন। এখন তিনি সিনিয়র কাটিং মেশিন অপারেটর। চাকরি জীবনে এমন বিপদে পড়েননি কখনও।

ঐ ঘটনা স্মরণ করে গা শিহরিত হয়ে উঠে তার। তিনি বলেন, আমি সকাল ৬টার ৫ মিনিট আগে খাবার নিয়ে অফিসে প্রবেশ করি। খাবারটা রেখে অফিসের ভিতর মালামাল যেখানে লোড আনলোড করা হয় সেখানে দাঁড়িয়েছিলাম। হঠাৎ একটি বিকট শব্দ হলো। সবাই যে যেভাবে পারে ছোটাছুটি করছে তখন আমিও দৌড় দেই। কিন্তু পরে কি হয়েছে আর বলতে পারিনা। অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলাম।যখন জ্ঞান ফিরল তখন দেখি আমি রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তার পাশে পড়ে আছি। আমার পাশেও বেশ কয়েকজনকে মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। দাঁড়ানোর চেষ্টা করি। কিন্তু দাঁড়াতে পারছিলাম না। আমার সাড়া শরীরে স্প্লিন্টারের মতো অনেক কাচ ও লোহা জাতীয় কিছু জিনিস বিদ্ধ হয়ে আছে। আমার দুই পা ভেঙ্গে গেছে। তারপর আবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলি।

হাসপাতালে শুয়ে এই কথাগুলো যখন বলছিলেন তখন তার স্ত্রী সন্তান, অফিসের বন্ধুরা অপলক দৃষ্টিতে শুধু তার দিকে চেয়ে রইলেন। মনোয়ার চোখের পানি ফেলে অন্যদেরও কাঁদিয়ে দিলেন।

 তিনি বলেন, হাসপাতালে কখন এসেছি বলতে পারিনা। জ্ঞান ফিরলে আমি জানতে পারি আবিদা হাসপাতালে পঙ্গু হয়ে শুয়ে আছি।

সেখান থেকে ৩দিন পর টঙ্গি মডেল হাসপাতালে আসি। তিনি আরও বলেন, গত ২৬ সেপ্টেম্বর আমার বাম পায়ে ইকফেকশন দেখা দেওয়ায় তাকে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে আবার ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। ঢাকা মেডিকেলে সিট না পাওয়ায় দুই রাত বারান্দায় থেকে টঙ্গির বাসায় চলে আসি।

তিনি কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, আমি সারা জীবনের জন্য পঙ্গু হয়ে গেলাম। আমার স্ত্রী সন্তানদের জন্য কিছুই করতে পারলাম না। সরজমিনে দেখা যায়, তার সারা শরীরে অসংখ্য দাগ ও ছিদ্র। মনে হয় যেন প্লিন্টারের আঘাত। দুই পা প্লাস্টার করা।দাঁড়াতে পারেন না।

তার দুপা ভেঙ্গে যাওয়ায় কত বছর এভাবে থাকতে হয় বুঝতে পাচ্ছিনা।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.