আফগানিস্তানে যুদ্ধের ময়দানে আবারও সক্রিয় হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর সেনাবাহিনীকে আরো সরাসরি তালেবানের সঙ্গে লড়াইয়ের নির্দেশ দিয়েছেন। আফগান সরকার এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে। 

আফগানিস্তানে মার্কিন সেনারা ফের যুদ্ধের ময়দানে

গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা জানান, তালেবানের উত্থান ঠেকাতে পরামর্শকের ভূমিকা পালনের পরিবর্তে আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনীর সঙ্গে আরো প্রত্যক্ষভাবে কাজ করতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ওবামা। তিনি অবশ্য জোর দিয়ে বলেন, দীর্ঘদিনের যুদ্ধের অবসান ঘটাতেই তিনি এমন নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ওবামার এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে গতকাল শনিবার আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আফগানিস্তানে সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অধিকতর সংশ্লিষ্টতার ঘোষণাকে আমরা স্বাগত জানাই।’ আফগানিস্তানে অবশিষ্ট মার্কিন সেনারা গত বছরের শুরু থেকে তালেবানবিরোধী যুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণের পরিবর্তে আফগান সেনাদের পরামর্শক হিসেবে কাজ করে আসছিল। কেবল নিজেদের ওপর আক্রমণ ঠেকাতে কিংবা আফগান সেনাদের রক্ষায় তাদের সরাসরি যুদ্ধে নামার নির্দেশ জারি ছিল। কিন্তু গত শুক্রবার সে অবস্থান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সরে আসার খবর জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাশটন কার্টার বলেন, ‘আমাদের যেসব সেনা সদস্য আফগানিস্তানে আছে, তাদের কেবল ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় সক্রিয় হওয়ার পরিবর্তে আরো কার্যকর উপায়ে যুদ্ধের ক্ষেত্রে কাজে লাগানোর কথা বলা হচ্ছে।’ যুক্তরাষ্ট্রের আরেকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, তাঁদের সেনারা আরো সক্রিয়ভাবে আফগান সেনাদের সহায়তা করবে, আরো নিবিড়ভাবে বিমান হামলার জন্য পরিকল্পনা প্রণয়ন করবে এবং যুদ্ধক্ষেত্রে আফগান সেনাদের সহায়তা করবে। ‘তবে তার মানে এই নয় যে তালেবানদের ওপর সর্বব্যাপী হামলা চালানো হবে’—এ কথাও বলেন ওই কর্মকর্তা। ১৫ বছর আগে আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দিতে অস্বীকৃতি জানানোয় তত্কালীন তালেবানশাসিত আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান চালায় যুক্তরাষ্ট্র। অভিযানে তালেবানের পতনের পর যুক্তরাষ্ট্রের সেনাসংখ্যা এক লাখ থেকে ধাপে ধাপে প্রত্যাহার করার পর এখনো রয়েছে ৯ হাজার ৮০০ জন। এদের কাজ মূলত পরামর্শমূলক। এই বছরে সেনাসংখ্যা সাড়ে পাঁচ হাজারে নামিয়ে আনার কথা ছিল। 

তালেবানের নতুন নেতার প্রতি জাওয়াহিরির সমর্থন : আফগানিস্তানে তালেবানের নতুন নেতা মোল্লা হায়বাতুল্লাহ আখুন্দজাদার প্রতি সমর্থন জানিয়ে একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন আল-কায়েদার নেতা আয়মান আল জাওয়াহিরি। ১৪ মিনিটের এক অনলাইন অডিও বার্তায় এ কথা জানান জাওয়াহিরি। তবে ওই অডিও বার্তার যথার্থতা তাত্ক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় তালেবান প্রধান মোল্লা আখতার মনসুর নিহত হওয়ার পর গত মাসে তাঁর ডেপুটি আখুন্দজাদাকে সংগঠনের প্রধান নির্বাচন করা হয় 

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.