ঈদের সময় অনেকেই ঘরের সাজে পরিবর্তন আনতে চান। দিতে চান উৎসবের আমেজ। পরিবর্তনটা যে বড়ই হতে হবে, তা নয়। অল্প খরচে টুকটাক কিছু জিনিসপত্র যোগ-বিয়োগ করেই ঘরে আনা যায় নতুনত্ব।


এই গরমে ঘরে ঈদের সাজ



এই ছোট ছোট পরিবর্তন আসতে পারে বসার ঘরের কুশন কভার, সোফার কভার, জানালা-দরজার পর্দা, বিছানার চাদর ইত্যাদি উপকরণে। ঘরের পর্দাগুলো পাল্টে দেখুন, বদলে যাবে অন্দরের চেহারা। যেহেতু এবারের ঈদ গরমে পড়বে, তাই পর্দায় রাখুন হালকা রং। সে ক্ষেত্রে চোখে স্বস্তি ও শীতলতা দুটিই পাবেন। কাপড়টা সুতি বেছে নিন। 

একটু পরিবর্তন নিয়ে আসে নতুনত্ববসার ঘরে চমক আনতে বদলে নিন আপনার কুশন কভারগুলো। ব্যবহার করুন হালকা রঙের সুতি কাপড়। বাজেট যদি আরেকটু বাড়াতে চান, তা হলে একই সঙ্গে পাল্টে নিতে পারেন সোফার কভারগুলোও। শোবার ঘরের বিছানার চাদরগুলোতে সুতি কাপড়ের প্রাধান্য দিন। নতুনত্বের পাশাপাশি স্বস্তি ও আরাম পাবেন। সঙ্গে আরও কিছু ছোট বৈচিত্র্য আনতে পারেন। দেয়ালে টাঙিয়ে নিতে পারেন বড় কোনো ছবি, নকশি কাঁথা কিংবা সুন্দর কোনো ভাস্কর্য। বসার ঘরে যোগ করতে পারেন একটি ডিভান, ছোট-বড় বিভিন্ন ল্যাম্পশেড কিংবা বড় কোনো ফুলের টব। এতে ঘরে একটা সতেজ ভাবও কাজ করবে।

এই গরমে ঘরে ঈদের সাজ


নগরদোলার শোরুমে গিয়ে দেখা গেল, ঈদ উপলক্ষে কুশন কভার, পর্দা, বেড কভার ইত্যাদির প্রচুর সংগ্রহ এসেছে। তারা মূলত দেশি ঢঙে অনুপ্রাণিত হওয়ায় ব্লকপ্রিন্ট, বাটিক, হাতের কাজ, কাটওয়ার্ক ইত্যাদি কাজ বেশি করেছে। ইন্টেরিয়র ডিজাইনার আনোয়ারা বেগমের মতে, পরিপাটি ও নান্দনিকতার সঙ্গে ঘর সাজাতে খুব বেশি খরচের প্রয়োজন হয় না। তাঁর নিজের ঘরটিই খুব বেশি বড় নয়; তবে ছোট পরিসরের মাঝেই তিনি কম খরচে বেশ চমৎকারভাবে ঘরটিকে সাজিয়েছেন। দেয়ালের রঙে প্রাধান্য দিয়েছেন সোনালি, কমলা ও হালকা কফি রং। ঘরের পর্দা, বিছানার চাদর, কুশন কাভারের ক্ষেত্রে দেশি জিনিসপত্রের পাশাপাশি তিনি বিদেশি জিনিসও ব্যবহার করেছেন।
এই সময়টায় সুতির উজ্জ্বল ও হালকা রঙের বিভিন্ন শেডের টাইডাই, বাটিক কিংবা গামছা চেকের কাপড় দিয়ে পর্দা, চাদর ইত্যাদি তৈরি করা যেতে পারে। লেবু রং, নীল, সিগ্রিন—এই রংগুলোর সঙ্গে ইট লাল, সাদা, চাঁপা সাদা রংগুলো ভালো মানাবে।


কোথায় পাবেন এবং দামদর

রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি শপিংমল, ঢাকা নিউমার্কেট, ধানমন্ডির আনাম র্যাং গস প্লাজা, রাপা প্লাজা, গুলশান ডিসিসি মার্কেট প্রভৃতি জায়গায় ঘর সাজানোর নানা উপকরণ, কুশন কভার, বেডশিট, পর্দা ইত্যাদির বিশাল সংগ্রহ পাবেন। এর মধ্যে কুশন কভারের দাম পড়বে ২০০ টাকা থেকে শুরু করে ৮০০ টাকা পর্যন্ত, বেডশিটের ক্ষেত্রে ৬৫০ টাকা থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে।

পর্দার দাম পড়বে ৬৫০ থেকে শুরু করে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত। এ ছাড়া ওয়াল আর্টের দাম পড়বে ৩ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত। ল্যাম্পশেডের দাম ১ হাজার ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ৮ হাজার টাকা পর্যন্ত।




Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.