আইফোনের মতো এমন আর কোনো ডিভাইস নেই যাতে এতো শত অ্যাড-অনস থাকে। এখানে আইফোনের এমন কিছু অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সম্পর্কিত তথ্য তুলে ধরা হলো, যেগুলো অবাস্তবধর্মী হওয়া সত্ত্বেও ফোনটির ব্যবহারকারীদের জন্য সেগুলো উপভোগযোগ্য:

আইফোনের ব্যবহারকারীদের জন্য উপভোগ্য ১০টি জিনিস





১. এক্সটার্নাল ক্যামেরা ফ্লাশ
আপনার আইফোনের ক্যামেরার বর্তমান ফ্ল্যাশটিকে যদি নিম্ন মানের মনে হয় তাহলে কনসেপ্টার থেকে আইব্লাজর ২ নামের একটি এক্সটার্নাল ক্যামেরা ফ্ল্যাশ যুক্ত করে নিতে পারেন। ব্লু টুথের মাধ্যমে এটি সরাসরি আপনার ফোনের আইওএসের ডিফল্ট ক্যামেরা অ্যাপের সঙ্গে একীভূত হয়ে কাজ করবে।

২. অ্যাটাচেবল শাটার বাটন
আপনি যদি আপনার ফোনটিকে আরো সুরক্ষিত করতে চান এবং পুরোনো দিনের ক্যামেরা দিয়ে তাক করো এবং ছবি তোলোর স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে চান তাহলে বিটপ্লে’র স্ন্যাপ! প্রো নিতে পারেন। এই খাপটি লাগালে ফোনটি আপনার হাত থেকে মেঝেতে পড়ে গেলেও অক্ষত থাকবে। আর এর যেই শাটার বাটনটি আছে সেটি ডিফল্ট ক্যামেরা অ্যাপের সঙ্গেই কাজ করবে। স্ন্যাপ! প্রো-তে অস্পষ্ট ছবিগুলো কাটছাট করে কমিয়ে আনার সুযোগও রয়েছে।

৩. অ্যাটাচেবল ক্যামেরা লেন্স
লোহা লাইফ সলিউশন আপনাকে দিচ্ছে একাধিক ইন্টারচেঞ্জেবল লেন্স। এই লেন্সের মাধ্যমে আপনি চলন্ত অবস্থাতেই একই সঙ্গে ম্যাক্রো ও ওয়াইড অ্যাঙ্গেলের শট নিতে পারবেন। যা আপনার আইফোনটির ডিফল্ট শুটারে সম্ভব নয়। এই লেন্স অ্যান্ড্রয়েড ফোনেও ব্যববহার করা সম্ভব।

৪. ব্রিদালাইজার
ব্যাকট্র্যাক মোবাইল ব্রিদালাইজারে রয়েছে এমন একটি সেন্সর যা আপনি কতটা মাতাল তার মাত্রার জানান দিবে। তারহীন এই সেন্সরটি আপনার মাতলামির মাত্রা মেপে তার ফলাফল আপনার আইওএস বা অ্যান্ড্রয়েডের অ্যাপে পাঠিয়ে দিবে। এতে পুলিশি ঝামেলা এড়াতে নিজ গাড়ি ছেড়ে পানশালা থেকে বেরিয়ে আপনাকে ট্যাক্সি নিতে হবে কিনা তাও বুঝতে পারবেন সহজেই।

৫. অ্যানেমোমিটার
আপনার যদি কখনো বাতাসের গতি মাপার দরকার হয় তখন আইফোনে একটি বহনযোগ্য অ্যানেমোমিটার লাগিয়ে নিতে পারেন। যা স্বল্প সময়েই আপনাকে সঠিক তথ্যটি সরবরাহ করবে।

৬. ক্যারাবাইনার চার্জার
এমএফআই সার্টিফায়েড নোম্যাডক্লিপ এমন একটি ক্যারাবাইনার যা আপনার সবগুলো কী ধারণে সক্ষম। কিন্তু এর মধ্যে একটি বিল্ট-ইন বিদ্যুৎবাহী ইউএসবি ক্যাবলও রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি আপনার আইফোনটি কম্পিউটারের সঙ্গে লাগিয়ে চার্জ করতে পারবেন বা তথ্য স্থানান্তর করতে পারবেন।

৭. ভার্চুয়াল কী বোর্ড
যদি আপনার আইফোনটি কোনো গুরুতর কাজে ব্যবহার করার ইচ্ছা না থাকে কিন্তু এমন একটি কী বোর্ড চান যেটি দেখে সবাই চমকে উঠবে তাহলে সেলুলোন’স এপিকের ভার্চুয়াল কী বোর্ডটি হতে পারে আপনার শীর্ষ পছন্দ।

৮. স্টোরেজ সলিউশন
অ্যাপলের আইফোনে কোনো মাইক্রো এসডি সাপোর্ট নেই। এর ফলে এতে ছবি, ভিডিও বা অন্য কোনো ধরনের ফাইল সংরক্ষণ একটু ঝামেলাপূর্ণ। এই ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে আপনি ব্যবহার করতে পারেন লিফ আইব্রিজ। এটি বিল্ট ইন লাইটনিং ও ইউএসবি পোর্টযুক্ত একটি ফ্ল্যাশ ড্রাইভ। এর মাধ্যমে আইওএস ডিভাইস থেকে আপনি যে কোনো কিছু অপসারন করে এক বারেই কোনো ইউএসবি ডিভাইসে স্থানান্তর করতে পারবেন।

৯. পাওয়ারড গিমবাল
নৌকায় চড়ে বা উচুনিচু ভূখণ্ডে চলন্ত গাড়িতে বসে তোলা ভিডিওটি যদি আপনি মসৃণ করতে চান তাহলে আপনার দরকার একটি পাওয়ারড গিমবাল। এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে যে কোনো পরিস্থিতিতে ক্যামেরার মুভমেন্টকে মসৃণ ভিডিও তোলার উপযোগী করে তুলতে পারে।

১০. হার্ট রেট মনিটর
অ্যাপল ওয়াচ বা ফিটনেস ব্যান্ডের সঙ্গে যুক্ততা ছাড়া হার্ট রেট মনিটর খুঁজছেন কি আপনি? তাহলে আপনি স্কোসের হার্ট রেট মনিটরটি ব্যবহারে করে দেখতে পারেন। এটি ব্লু টুথ ও এএনটি প্লাস প্রযুক্তি ব্যবহার করে আপনার ফোনের ফিটনেস অ্যাপের সঙ্গে সমন্বয় সাধন করবে। এটি আপনাকে আপনি প্রতিদিন কত ক্যালোরি শক্তি পোড়ালেন এবং দৌড়ানোর পর আপনার চলনভঙ্গি, দূরত্ব ও গতি সম্পর্কিত তথ্য সরবরাহ করবে।
এর ব্যাটারিতে চার্জ থাকে ৮ ঘন্টা। পানি নিরোধক হওয়ায় বৃষ্টিতেও কোনো সমস্যা হবে না। আর ১০০ ফুট দূর থেকেও এটি আপনার ফোনের সঙ্গে যুক্ত থাকতে সক্ষম।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.