ধরুন, বেশ মজার একটা দৃশ্য দেখলেন। একজন মানুষ তার গায়ে রাবারের তৈরি কুকুরের পোশাক পরেছেন। কুকুরের মতোই মুখে কোনো খেলনা নিয়ে এটা সেটা করছেন। এমন দৃশ্য দেখলে যে কেউ মজা পাবেন বা হেসে উঠবেন। বোঝায় যায়, মানুষটি বেশ কৌতুক করতে পারেন। কিন্তু যারা জীবনের সঙ্গে কুকুরের মতো চাল-চলন বা স্বভাব-চরিত্র মিশিয়ে নিয়েছেন, তাদের ক'জন মানুষই বা চেনেন?


বহু অনুষ্ঠানে বা পার্কে যারা কুকুরের পোশাক পড়ে কুকুর সেজে মানুষকে আনন্দ দেন, অনেক ক্ষেত্রেই তাদের জীবনটা অনেক কষ্টের। তবে পেশাদার এই মানুষের সংখ্যা অনেক। ইন্টারনেটের কল্যাণে তারা এক হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। এভাবে বিগত ১৫ বছরে বিশাল এক 'পাপ কমিউনিটি' গড়ে উঠেছে। এসব মানব-কুকুর সমাজের বহু মানুষ রয়েছেন। তারা পুরুষ, সমকামী বা যেকোনো চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের হতে পারেন। এরা সবাই চামড়ার তৈরি কুকুরের পোশাক পরতে আগ্রহী, তারা কুকুরের মতো করে খেলনা নিয়ে খেলেন, পাত্র থেকে মুখ দিয়ে খাবার খান, কুকুরের মতো করেই কান চুলকান। এক ডকুমেন্টরিতে দেখানো হয়, টম ওরফে স্পট 'মি. পাপি ইউরোপ' চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেন। সেখানে ডেভিড ওরফে বুটব্রাশ ক্যামেরার সামনে কথা বলেন মুখে কুকুরের মুখোশ পরে। 

ডকুমেন্টরিতে দেখা যায়, লন্ডনের রাস্তায় দুজন কুকুর হয়ে হাঁটছেন। তারা ঘেউ ঘেউ করছেন এবং যান্ত্রিক লেজটি নাড়ছেন। তার গলায় বেল্ট বাঁধা। টম নিজের জীবনটাকেই কুকুরের মতো করে নিয়েছেন। তিনি আঁটোসাঁটো কুকুরের পোশাক পরেন। অনলাইন স্টোর ইবে-তে এগুলো কিনতেও পাওয়া যায়। বলেন, গলায় বেল্ট ছাড়া কুকুরের জীবন অর্থহীন। বেল্ট থাকার অর্থ তাকে দেখার কেউ আছে। টমের প্রেমিকার সঙ্গে তার ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে। তার সম্পর্ক গড়ে উঠেছে কলিনের সঙ্গে। তারা দুজনই সমকামী। তারা দুজনই মানব-কুকুর। মনোবিজ্ঞানী কার্ল জাং জানান, মানুষের সচেতন মন আবেগ, আবেশ, শিহরণ অনুভব করে এবং মনে আদর্শ নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা করে। তাদের এই মনজুড়ে বসে রয়েছে কুকুর বা এর জীবন। 

বিভিন্ন পার্কে বা ক্লাবে যখন তারা এভাবে পেশাদার কাজ করেন, তখন মানুষ অনেক মজা পায়। তবে তাদের জীবনের সমকাম সত্যিকার অর্থে বেশ সিরিয়াস বিষয়। আরেক মানব-কুকুর কাজ। তার দাবি, স্রেফ কুকুরের মতো সাজলেই এমন হওয়া যায় না। কুকুরের মতো চলতে হলে সত্যিকার অর্থেই কুকুর হতে হবে। এভাবে চলাফেরার বিষয়টি তিনি দারুণ উপভোগ করেন। অনেক সময়ই এ জীবনের চর্চার বড় একটি অংশ জুড়ে রয়েছে যৌনতা, জানান কাজ। আরো বলেন, এসব পোশাক পরে প্রথমেই মনে হয় সেক্স করতে হবে। আবার সব সময় এতে যৌন আবেদন থাকে না। এমন জীবনের অভিজ্ঞতা সত্যিই অনন্য। এ জীবনে যে কেউ আসতে পারেন যার আগ্রহ রয়েছে। এ জীবন নিয়ে কোনো অনুতাপ থাকলে চলবে না। রাস্তায় অন্যান্য মানুষ বা প্রাণীর মতো আমরাও, জানান মানব-কুকুররা।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.