চীনের কোনো এক দোকানে ঢুকে দোকানির কাছে হয়তো আইফোন চেয়ে বসলেন। স্মার্টফোনের বদলে দোকানি আপনার হাতে যদি স্মার্টফোনের খাপ (কভার) ধরিয়ে দেয়, তবে খুব একটা অবাক হবেন না। কেন হবেন না, তা বলার আগে টনা বর্ণনা করা যাক। ২০০৭ সালের জানুয়ারিতে আইফোন ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ার ঘোষণা দেয় অ্যাপল ইনকরপোরেটেড। যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে সে বছরের জুনে আইফোন ছাড়া হলেও ২০০৯ সালের আগে চীনা ব্যবহারকারীদের হাতে আইফোন ওঠেনি।




এদিকে ২০০৭ সালে জিনতং তিয়ান্ডি নামের এক চীনা প্রতিষ্ঠান তাদের চামড়াজাত পণ্যের বিপণনের জন্য ‘আইফোন’ নামটি বেছে নেয়। ব্র্যান্ড হিসেবে নিবন্ধন করতে একটুও দেরি করেনি তারা।
২০১২ সালে জিনতং তিয়ান্ডির বিরুদ্ধে চীনের ট্রেডমার্ক কমিশনে আবেদন করে অ্যাপল। তাতে কাজ না হলে পরের বছর মামলা ঠুকে দেয় মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। সে যাত্রায় হিতে বিপরীত হলে চীনের উচ্চ আদালত বেইজিং মিউনিসিপ্যাল হায়ার পিপলস কোর্টের মুখাপেক্ষী হয় অ্যাপল। কিন্তু অ্যাপলের সে আবেদন নাকচ করে দিয়ে আদালত জানান, জিনতং তিয়ান্ডির আইফোন ব্র্যান্ড নিবন্ধনের আগে যে অ্যাপলের আইফোন চীনের মানুষের কাছে জনপ্রিয় কোনো নাম ছিল, তা প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে অ্যাপল। চীনের কমিউনিস্ট পার্টির সরকারি সংবাদপত্র পিপলস ডেইলির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়। জিনতং তিয়ান্ডি চীনে কোনো ট্রেডমার্ক আইন যে ভঙ্গ করেনি, তা সাফ সাফ জানিয়ে দিয়েছেন দেশটির আদালত। ফলে অ্যাপলের আর কিছু করার থাকছে না সেখানে।

চীনা প্রতিষ্ঠান জিনতং তিয়ান্ডির পক্ষ থেকে বলা হয়, অ্যাপলের বাইরেও ‘আইফোন’ ব্র্যান্ড জনপ্রিয় হতে পারে। আমরা এটিকে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে নিয়ে যাব। একসঙ্গে কাজ করলে আইফোন গ্রাহকদের আরও সেবা দিতে পারব আমরা।
শুধু আইফোন না, অ্যাপলের আইটিউনস মুভিজ এবং আইবুকস সেবাও চীনা বাজারে হুমকির মুখে আছে।               
সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.