শসার জুস। ছবি: মো. মিন্টু হোসেন
স্বাস্থ্যকর ও সহজলভ্য বলে আমরা সারা বছরই শসা খেতে পছন্দ করি। প্রচুর পরিমাণ পানি, ভিটামিন কে, সিলিকা, ভিটামিন এ, সি, ক্লোরোফিল থাকে বলে শসাকে দারুণ উপকারী সবজি হিসেবে গণ্য করা হয়। কাঁচা এবং রান্না করে খাওয়ার পাশাপাশি পুষ্টির জন্য জুস হিসেবেও খাওয়া যায়। নিয়মিত শসার জুস খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে এবং পিত্তথলিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি কমে। 
শরীরকে আর্দ্র রাখে
প্রতিদিন এক গ্লাস করে শসার জুস খেলে শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান বের হয়ে যায়। শসায় প্রচুর পানি থাকায় শরীরকে আর্দ্র রাখতে সাহায্য করে। 
ক্যানসার প্রতিরোধ করে
নিয়মিত স্বাস্থ্যকর এ জুস খেলে মারাত্মক ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি কমে যায়। শসাতে যে ল্যারিকিরেসিনোল, পিনোরিসিনোল ও সিকোইসো ল্যারিকিরেসিনোল নামের উপাদান থাকে, যা বিভিন্ন ধরনের ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। 
ওজন কমাতে
যাঁরা ওজন কমাতে চান, তাঁদের জন্য শসার জুস দারুণ কার্যকর। এতে ক্যালরি কম থাকে এবং প্রচুর পানি থাকে, যা অতিরিক্ত চর্বি কমাতে পারে। 
হজম ভালো হয়
ডায়েটারি ফাইবার ও প্রচুর পানি থাকায় শসার জুস কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। পরিপাকতন্ত্র থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিয়ে হজমে সাহায্য করে শসার জুস। 
মাথা ব্যথা কমায়
ঝিমঝিম ভাব কাটানোর জুস হিসেবে দারুণ কার্যকর। এ ছাড়া মাথা ব্যথা কমাতে পারে শসার জুস।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.