নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের প্রতিবাদে সারা দেশে জামায়াতের ডাকা ২৪ ঘণ্টার হরতাল চলছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া হরতাল কর্মসূচি চলবে শুক্রবার ভোর ৫টা পর্যন্ত। কিন্তু বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত হরতালের যে চিত্র চোখে পড়েছে তাতে কোথাও কোনো পিকেটিং কিংবা ঝটিকা মিছিল করতে দেখা যায়নি হরতাল সমর্থনকারীদের। এমনকি এখনো পর্যন্ত কোথাও কোনো নাশকতার খবরও পাওয়া যায়নি।

 


তবে রাজপথে হলতাল সমর্থনকারীদের দেখা না গেলেও রাজধানীর কিছু কিছু অলিতে-গলিতে অল্প-বিস্তর অবস্থান নিতে দেখা গেছে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের। কোথাও কোথাও সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে এক পলকের জন্য ধরা দিতেও দেখা গেছে। যেন ফটো সেশনেই সীমাবদ্ধ ছিল হরতাল পালন।

বিপরীতে নাশকতা ঠেকাতে তৎপর অবস্থানে দেখা গেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের। মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ সব পয়েন্টে সকাল থেকেই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। 

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে দণ্ডিত জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায় কার্যকর করার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী এ হরতাল ডাক দেয় দলটি।


এদিন সকালে সরেজমিনে রাজধানীর আসাদগেইট, ফার্মগেইট, কাওরানবাজার, হাতিরঝিল, মগবাজার, রমনা, জাতীয় প্রেসক্লাব, আজিমপুর, শাহবাগসহ গুরুত্বর পূর্ণ বিভিন্ন পয়েন্ট ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে। জামায়াতের ডাকা ২৪ ঘণ্টার হরতালে সকাল থেকেই গণপরিবহন স্বাভাবিক নিয়মে চলছে। সকালের দিকে গণপরিবহনের সংখ্যা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এর সংখ্যা বাড়ছে বলে জানিয়েছেন বাস চালকরা। তবে দূরপাল্লার গাড়ী চলাচল করতে দেখা যায়নি। দূরপাল্লার বাস ছাড়ার বিষয়ে দুপুরে সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছে বাস মালিক সমিতি।
 


তবে হরতালে কিছুটা বিপাকে পড়েছে অফিসগামী ও স্কুলগামী শিক্ষার্থীরা। সকালের দিকে বাস কম থাকায় রিকশা কিংবা সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে গন্তব্যে ছুটছেন তারা। আবার পায়ে হেঁটেও অফিস ও স্কুলে যাচ্ছে অনেকে। জামায়াতের হরতাল মানেই নাশকতার যে শঙ্কা ছিল, তা প্রায় শূণ্যে নেমে এসেছে। তারপরেও রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সবগুলো পয়েন্টেই পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবের উপস্থিতিও লক্ষ্য করা গেছে।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে হরতালের ডিউটিতে থাকা এক পুলিশ সদস্য জানালেন, আইন শৃঙ্খলাবাহিনী কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা বা জামায়াত শিবিরের ঝটিকা মিছিলের খবর পাওয়া যায়নি।

গাবতলী টু যাত্রাবাড়ী রুটের ৮ নম্বর বাসের চালক আব্দুল সাত্তার বাংলামেইলকে বলেন, ‘সকাল থেকেই গাবতলী থেকে রাজধানীর বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে বাস ছাড়ছে। আমরাও বেড় হয়েছি। রাস্তায় যাত্রী সংখ্যাও ভালো।’



জামায়াতের ডাকা ৪৮ ঘণ্টা হরতালের সমর্থনে মিছিল ও পিকেটিং করে নিজামীকে সরকারী ষড়যন্ত্রে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে সমাবেশ থেকে মন্তব্য করেছে গাজীপুর জেলা জামায়াত। মিছিল-পিকেটিংয়ে গাজীপুরের জয়দেবপুরে যান চলাচলে কিছু অচলাবস্থা বিরাজ করছে। জয়দেবপুর থানা উত্তর আমীর মো. সাদেকুজ্জামানের নেতৃত্বে বৃহ্স্পতিবার দুপুরে জয়দেবপুরে হরতালের সমর্থনে মিছিলটি বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে। এসময় মিছিলে আরো উপস্থিত ছিলেন জয়দেবপুর থানা শিবির সভাপতি ফখরুজ্জামান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। নিজামীকে হত্যায় একদিন এদেশের মানুষ পুংখানুপুংখভাবে তার হিসাব নিবে বলেও সমাবেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হয়।

অন্যদিকে হরতালের সমর্থনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণে মিছিল, সড়ক অবরোধ ও অগ্নিসংযোগকালে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর থেকেই মহানগর দক্ষিণে দফায়  দফায় হরতালের সমর্থনে মিছিল ও সড়কে পেট্রোল ঢেলে অগ্নিসংযোগ করে সড়ক অবরোধ করে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা।

সকাল ৮টার দিকে যাত্রাবাড়ী জুরাইন রেল গেইট এলাকায় জামায়াতের যাত্রাবাড়ী থানা আমির খোন্দকার আবুল ফাতেহ এর নেতৃত্বে মিছিল করে ১০ মিনিট সড়ক অবরোধ শেষে সমাবেশ করে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা। মিছিলের সামনের সারিতে ছিল জামায়াত নেতা আনোয়ার হোসেন, মুক্তার আলী, আহসান উল্ল্যাহ প্রমুখ।

সকাল সাড়ে ৮টায় মাতুয়াইল মেডিকেলের সামনে থেকে জামায়াত নেতা নিজামুল হক ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের শিবির সেক্রেটারি রিয়াজ উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি মিছিল বের হয়ে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এসময় পুলিশ ২ জনকে আটক করে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.