ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকেন্দ্রিক সহিংসতায় ফরিদপুর, গাজীপুর ও কিশোরগঞ্জের ভৈরবে তিনজন নিহত হয়েছেন। এ তিন জেলাসহ ১১ জেলায় সংঘর্ষ-সহিংসতায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৮৯ জন। বাড়িঘর, নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা-ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটেছে। 

গত শনিবার তৃতীয় ধাপের ভোট গ্রহণ চলাকালে তুলনামূলক কম সহিংসতা হলেও পরে বিভিন্ন স্থানে সহিংসতা হয়েছে। কোথাও কোথাও পরবর্তী ধাপের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতা হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে নির্বাচনকেন্দ্রিক সহিংসতায় এ পর্যন্ত ৪৭ জন নিহত হয়েছেন।

তিন ব্যক্তি নিহত: ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার বাগাট ইউপির আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মতিয়ার রহমান খানের ভাই আতিয়ার রহমান খান (৫০) শনিবার রাতে বাগাট বাজার এলাকায় সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ বলেছে, সন্ধ্যায় রায়জাদাপুর গ্রামে ভোট চাওয়াকে কেন্দ্র করে মতিয়ার ও আরেক চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি, হাতাহাতি হয়। রাত সাড়ে নয়টার দিকে বাগাট বাজার এলাকায় মতিয়ারের সমর্থক মিথুন নাথকে কোপায় সন্ত্রাসীরা। মিথুনকে বাঁচাতে গেলে আতিয়ারসহ ছয়জনকে গুরুতর জখম করে সন্ত্রাসীরা। এলাকাবাসী তাঁদের মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠালে চিকিৎসক আতিয়ারকে মৃত ঘোষণা করেন।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.