রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও রাজশাহী শিল্প ও বণিক সমিতির সাবেক প্রশাসক জিয়াউল হক (৪৮) গতকাল রোববার বিকেলে নিজ ব্যবসায়িক কার্যালয়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। হাসপাতালে নেওয়ার পর তিনি মারা যান।

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাজশাহী নগর ভবনের সামনে জিয়াউল হকের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের একটি কার্যালয় রয়েছে। গতকাল তিন কক্ষের ওই কার্যালয়ের একটি কক্ষে জিয়াউল ও তাঁর ঢাকার ব্যবসায়ী-বন্ধু নয়ন অবস্থান করছিলেন। অপর কক্ষে ছিলেন জিয়াউলের অপর তিন ব্যবসায়ী-বন্ধু রবিউল ইসলাম, জসীম উদ্দিন ও তরিকুল।

জসীম জানান, তিনি নগরের গণকপাড়ার মোড়ের রহমানিয়া হোটেল থেকে সবার জন্য খাবার নিয়ে যান। তাঁরা তিনজনে খাওয়া শুরু করেছিলেন। জিয়াউল হক ও নয়ন তখনো খাওয়া শুরু করেননি। বিকেল সাড়ে চারটার দিকে গুলির শব্দ হয়। শব্দ শুনে তাঁরা তিনজন জিয়াউল হকের কক্ষের দিকে ছুটে যান।
রবিউল ইসলাম বলেন, তিনি গিয়ে দেখেন, নয়ন জিয়াউলের শরীরের গুলিবিদ্ধ স্থানটি চেপে ধরে বাইরে বের করে আনছেন। বাইরে আসতে আসতে জিয়াউল হক বলেছিলেন, ‘কীভাবে যেন গুলি লেগে গেল। আমাকে তাড়াতাড়ি হাসপাতালে নিয়ে চলো।’ তাঁকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। জরুরি বিভাগ থেকে জিয়াউলকে ৫ নম্বর ওয়ার্ডে পাঠানো হয়। সেখানেই তিনি মারা যান। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়। জিয়াউলকে হাসপাতালে নেওয়ার পর থেকেই সেখানে ছিলেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান।

আসাদুজ্জামান জানান, নয়ন ঢাকার ব্যবসায়ী। তবে তাঁর পুরো পরিচয় জানেন না। মাঝেমধ্যেই জিয়াউলের কাছে আসতেন। জিয়াউল হক দুই ছেলে, স্ত্রীসহ রাজশাহী নিউমার্কেটের পাশের একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। নগরের ষষ্ঠিতলায় তাঁর পৈতৃক বাড়ি। তাঁর বড় ভাই আমিনুল ইসলাম বলেন, কীভাবে ঘটনাটি ঘটেছে, সে ব্যাপারে তাঁরা কিছুই জানেন না। আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে রাজশাহী নগর পুলিশের বোয়ালিয়া জোনের সহকারী কমিশনার গোলাম সাকলায়েন জানান, ঘটনার পরপরই পুলিশ জিয়াউলের কার্যালয়টি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। রাত পৌনে ১০টার দিকে জিয়াউলের বন্ধু তরিকুলের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। জসিম ও রবিউলকে বোয়ালিয়া থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদত হোসেন খান বলেন, নয়ন নিজেই ফোন করে গুলির কথা স্বীকার করেছেন বলে আওয়ামী লীগের নেতারা জানিয়েছেন। এরপর থেকে পুলিশ তাঁকে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.