নেমন্তন্ন আসে এই গরমেও। আর সেই অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে সাজটা কেমন হবে তা নিয়ে কি চিন্তায় পড়তে হয়? শাড়ি-গয়নার সঙ্গে এই সময়ে সাজটাই বা কেমন হবে? কেননা শুধু তীব্র গরমই নয়, ঘামের কথাও মাথায় রাখতে হয়। সাজার পর যদি ঘেমে গিয়ে মেকআপ নষ্ট হয়ে যায় তাহলে নেমন্তন্নই মাটি।



রূপবিশেষজ্ঞরা বলেন, এই সময় একদিকে ত্বক খারাপ হওয়ার আশঙ্কা থাকে, অন্যদিকে মেকআপ বাঁচিয়ে রাখাটাও কষ্টকর৷ ঘামের কারণেই অর্ধেক মেকআপ গলে যায়।

গরমে কীভাবে ঠিকমতো মেকআপ বসানো যায়, কোনো আয়োজনে নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা যায় সে ব্যাপারে কিছু আলোচনা করা হলো।



বেস দেওয়ার প্রস্তুতি:

দিন বা রাত, অনুষ্ঠানটা কখন হচ্ছে তার ওপর নির্ভর করে মেকআপের বেস করতে হবে৷ যদি দিনের অনুষ্ঠান হয় তবে বেসটা হালকা হবে৷ রাতের অনুষ্ঠানে একটু ভারী বেস হলে সমস্যা হয় না। প্রথমে ফেসওয়াশ এবং ক্লিনজার দিয়ে ত্বক খুব ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। মুখ ধোয়ার সময় এক টুকরো বরফ ঘষে নিলে ত্বকটা সতেজ দেখাবে। এতে করে মেকআপ ত্বকে বেশিক্ষণ ধরে থাকবে।

পদ্ধতি:

প্রয়োজনীয় উপকরণ: ফেস প্রাইমার, ফাউন্ডেশন/প্যানকেক, কনসিলার, ফেসপাউডার, মেকআপ সেটিং স্প্রে ও ফেস ব্রাশ বা স্পঞ্জ।



শুষ্ক ও মিশ্র ত্বকে:
 প্রথমে প্যানস্টিক হাত দিয়ে ভালোভাবে পুরো মুখে লাগিয়ে নিতে হবে। তবে যা-ই ব্যবহার করুন কমপ্যাক্ট পাউডার লাগাতে ভুলবেন না। এবার ভেজা স্পঞ্জ দিয়ে ফাউন্ডেশন ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিন, যেন ত্বকে ভালোভাবে মিশে যায়। শুষ্ক ত্বকে আর্দ্রতাযুক্ত বা ময়েশ্চারাইজার আছে এমন ফাউন্ডেশন প্রয়োজন। যেকোনো ক্রিম বেসড ফাউন্ডেশন কিনতে পারেন। কপালে, নাকে, থুতনিতে ফাউন্ডেশনের কালার টোনের সামঞ্জস্য বজায় রাখতে চেষ্টা করুন। চোখের পাতায়ও ফাউন্ডেশন লাগাবেন এবং ভালোভাবে স্পঞ্জ করবেন।
ফেস প্রাইমার আঙুলের মাথায় নিয়ে পুরো মুখে ঘষে ঘষে লাগাতে হবে৷ প্রাইমার দেওয়ার পর মিনিট দশেক অপেক্ষা করতে হবে। প্রাইমারটা মুখে বসার পর মুখে গাঢ় কোনো দাগ থাকলে কনসিলার দিয়ে হালকা করে ঢেকে দিন। শুধু গাঢ় দাগ থাকলে এখন কনসিলিং করুন, দাগ হালকা হলে ফাউন্ডেশনের পর কনসিলিং করতে হবে। তৈলাক্ত ত্বকের ওপর দিলে ত্বকের তেল ফাউন্ডেশনে মিশে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে প্লেট বা প্লাস্টিক শিট ব্যবহার করতে পারেন। ফাউন্ডেশন যদি ভারী হয় বিউটি ব্লেন্ডার বা স্পঞ্জ ব্যবহার করুন। ব্লেন্ডার পানিতে ভিজিয়ে নিয়ে অতিরিক্ত পানি ফেলে দিয়ে তাতে ফাউন্ডেশন নিয়ে মুখে ব্লেন্ড করুন। আবার হালকা ধরনের ফাউন্ডেশনের জন্য ফেস ব্রাশ করা যায়। অনেকে আবার আঙুল দিয়ে ব্লেন্ড করতেই পছন্দ করেন। তবে তৈলাক্ত ত্বকের জন্য হাতের ব্যবহার না করাই ভালো। পরিষ্কার ব্রাশ বা স্পঞ্জ ব্যবহার করা উচিত। সাধারণত রাতের জমকালো অনুষ্ঠানের জন্য মেকআপে ভারী ফাউন্ডেশন ব্যবহার করা হয়। দিনের কোনো বিয়ের অনুষ্ঠান হলে প্যানকেক ব্যবহার করা যায়। কেননা প্যানকেক বেশি সময় ধরে তেলমুক্ত থাকে, গলে যায় না। দিনের সাধারণ পার্টি হলে হালকা ফাউন্ডেশন ব্যবহার করুন।
প্যানকেক ব্যবহার করতে চাইলে আপনার ত্বকের ধরন অনুযায়ী দুটি প্যানকেক কিনে নিন। চাইলে একটা দিয়েও করতে পারেন। স্পঞ্জ ভিজিয়ে বাড়তি পানি ফেলে দিয়ে তারপর স্পঞ্জে প্যানকেক লাগিয়ে ধীরে ধীরে বেস তৈরি করুন। চাইলে প্রথমে হলুদ একটা শেড দিয়ে এক স্তর (লেয়ার) করে এর ওপর ন্যাচারাল শেড দিয়ে বেস তৈরি করতে পারেন। আবার দুই শেড মিশিয়েও করতে পারেন।
ফাউন্ডেশন বা প্যানকেক দিয়ে বেস হয়ে গেলে এবার যদি মেকআপ সেটিং স্প্রে থাকে, তবে স্প্রে করে দিতে পারেন এই বেসের ওপর।
এবার ফাউন্ডেশন বা প্যানকেকের বেসটা ফেস পাউডার দিয়ে ঠিক করে নিন। পাউডার পাফ দিয়ে হালকা করে বেসের ওপর বুলিয়ে সেট করে নিতে পারেন।

 আপনার চেহারার সৌন্দর্যকে ফুটিয়ে তোলাই মেকআপের উদ্দেশ্য। তাই যেকোনো সময়ের মেকআপে খেয়াল রাখতে হবে কোনটি আপনার উপযুক্ত সাজ, কী আপনার পছন্দ, কোনটি আপনাকে মানাবে এবং কোনটি ধারণ করতে পারবেন আপনি নিজে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.