ভারতে বাবাকে হত্যার দায়ে ১৭ বছরের এক কিশোরকে আটক করেছে দিল্লি পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, মাকে নির্যাতনের হাত থেকে ‘রক্ষা করতে’ গিয়েই সে ওই হত্যাকাণ্ডটি ঘটিয়েছিল।




বুধবার ওই কিশোরকে গ্রেপ্তার করে কিশোর আদালতে হাজির করে পুলিশ। আদালত তাকে সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে। সোমবার ভারতের রাজধানী দিল্লি সংলগ্ন সামায়পুর বাদলি এলাকায় ওই হত্যার ঘটনাটি ঘটে বলে ‘দ্য ইন্ডিয়ান একাসপ্রেস’ পত্রিকাটি জানিয়েছে।

পুলিশের বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানায়, নিহতের নাম সুরেন্দ্র কুমার (৪০)। তিনি কল সারাইয়ের কাজ করতেন। সোমবার বিকেলে মাতাল অবস্থায় বাড়ি ফেরেন কুমার। ঘরে ঢুকেই স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া শুরু করেন। ঝগড়ার এক পর্যায়ে তিনি তাকে পেটাতে থাকেন। তার মা তখন সাহায্যের জন্য চিৎকার করতে থাকেন। মাকে রক্ষা করতে ছুটে আসে ছেলে। সে তার বাবাকে পাথর দিয়ে আঘাত করে। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মারা যান কুমার। এরপর সে বাবার মৃতদেহটি বাড়ি থেকে ৫০ মিটার দূরের এক পরিত্যক্ত স্থানে ফেলে দিয়ে আসে।
লাশ পচে গন্ধ বের হলে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। লাশ উদ্ধারের পর পুলিশ একটি খুনের মামলা দায়ের করে। পুলিশি তদন্তে দেখা যায়, গত সোমবার থেকে নিখোঁজ রয়েছেন কুমার। এ নিয়ে ওই কিশোরকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই সে কান্নায় ভেঙে পড়ে এবং বাবাকে হত্যার করার কথা স্বীকার করে নেয়। এ ঘটনায় ওই কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে রক্তমাখা জামাকাপড় ও হত্যার আলামত পাথরটি উদ্ধার করা হয়েছে।

Post a Comment

বাংলাদেশ

[National][fbig1]

ঢাকা উত্তর

[Dhaka North][slider2]

ঢাকা দক্ষিন

[Dhaka South][slider2]

আন্তর্জাতিক

[International_News][gallery2]

ঢাকা উপজেলা

[Dhaka Upazila][fbig2 animated]

রাজনীতি

[political_news][carousel2]

অপরাধ

[Crime][slider2]
Powered by Blogger.