আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন  কুড়িগ্রাম-৪ আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী  মাছুম ইকবাল ।  কুড়িগ্রাম-৪ আসন থেকে একাধিক মনোনয়নপত্র জমা পড়লেও জনসমর্থন এগিয়ে থাকা মাছুম ইকবাল মনে করেন মনোনয়ন দৌড়ে এখন পর্যন্ত তিনিই এগিয়ে আছেন এবং তিনিই পাবেন। 



অপরদিকে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার প্রতিবেদন, স্থানীয় নেতা-কর্মী এবং আওয়ামীলীগ সূত্রে জানা যায়,কুড়িগ্রাম-৪ আসনের নৌকা প্রতীক নিয়ে ব্যাপক জনসমর্থন নিয়ে মনননোয়নের সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী অ্যাডভোকেট মাছুম ইকবাল। রাজনৈতিক অঙ্গনে পরিচ্ছন্ন ইমেজ রয়েছে আওয়ামী লীগ নেতা মাছুম ইকবালের। তিনি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী। মাছুম ইকবাল বলেন, তার বাবা প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক ছিলেন আওয়ামী লীগের জনপ্রিয় নেতা। রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান হিসেবে রাজনীতিতে আসেন মাছুম ইকবাল। 

তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। এ ছাড়া রৌমারী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক, উপজেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। বর্তমানে তিনি রৌমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সম্মানিত সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুড়িগ্রাম-৪ হ‌ইতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রাপ্তির আশায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ড. আব্দুস সোবাহান গোলাপ ভাই এর নিকট এডভোকেট মাছুম ইকবাল এর মনোনয়ন পত্র জমা দানের মূহুর্ত। সকলের দোয়া চাই। নৌকা মার্কায় ভোট চাই।

দীর্ঘদিন থেকে স্থানীয় মানুষের সুখে দুঃখে পাশে থাকার কারণে সবার ভালবাসা তিনি বরাবরই পেয়ে এসেছেন। কুড়িগ্রাম-৪ আসনের স্থানীয় জনগণ ভালবেসে, তাকে বলে- মাটি ও মানুষের নেতা। তরুণ সৎ প্রার্থী হিসেবে প্রায় সকল প্রতিবেদনে সবার থেকে এগিয়ে মাছুম ইকবাল। কুড়িগ্রামের একজন ভোটার মুখলেছুর রহমান মনে করেন “ব্যক্তি মাছুম ইকবাল সৎ, নিষ্ঠাবান, স্বচ্ছ রাজনীতিবিদ হিসেবে সকল মহলে পরিচিত। অন্য নেতাদের মতো তার বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক দূর্নিতির, শেয়ার বাজার ক্যালেঙ্কারি, সাংবাদিক পিটানো, কোন ব্যাক্তির উপর ঝুলুম করে কোন একটি পরিবারকে ধ্বংস করার অভিযোগ কেউ কখনও করতে পারেনি কেউ”।

যদিও প্রধানমন্ত্রীর দলীয় সিদ্ধান্ত, আগামী নির্বাচন হবে অংশগ্রহণমূলক। এখানে দলীয় প্রতীকের পাশাপাশি প্রার্থীর ব্যক্তিগত ইমেজ-কারিশমাও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তাই সব কিছু বিবেচনায় আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়নের পাল্লা মাছুম ইকবালের দিকেই ভারী।